জঙ্গি-সন্ত্রাসীদের কোনও দেশ-কাল-ধর্ম নেই: প্রধানমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক
২৪ এপ্রিল ২০১৯, বুধবার
প্রকাশিত: ১০:৪০ আপডেট: ১০:৪৮

জঙ্গি-সন্ত্রাসীদের কোনও দেশ-কাল-ধর্ম নেই: প্রধানমন্ত্রী
ফাইল ফটো

সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ থেকে সবাইকে দূরে থাকার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ কখনও কল্যাণ বয়ে আনে আনে না। এ ধরনের ঘৃণ্য কাজে কেউ যেন জড়িত না হয়। আমরা আর কোনও সন্ত্রাসী-জঙ্গিবাদী ঘটনা দেখতে চাই না। মনে রাখতে হবে- সন্ত্রাসী-জঙ্গিদের কোনও দেশ কোনও ধর্ম কোনও কাল কোনও পাত্র নেই। জঙ্গি জঙ্গিই, সন্ত্রাসী সন্ত্রাসীই।’

বুধবার (২৪ এপ্রিল) একাদশ জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে শ্রীলঙ্কায় সন্ত্রাসী হামলা ঘটনা উল্লেখ করে তিনি এসব কথা বলেন।

শ্রীলঙ্কায় সিরিজ বোমা হামলায় আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতা ও শেখ হাসিনার ফুফাতো ভাই শেখ ফজলুল করিম সেলিমের নাতি জায়ান চৌধুরী নিহতের ঘটনায় সমবেদনা জ্ঞাপন করেন প্রধানমন্ত্রী। 

তিনি বলেন, ‘এই নৃশংস হামলায় এখন পর্যন্ত ৪০ শিশুসহ তিন শতাধিক লোকের প্রাণহানি হয়েছে। প্রতি মুহূর্তে সেখান থেকে মৃত্যুর খবর আসছেই। লাশের সারি দীর্ঘ হচ্ছে। আহতরা হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করছে।’

শিশু জায়ানের আত্মার শান্তি কামনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘৮ বছরের এক ছোট বাচ্চা জায়ান। কী অপরাধ ছিল তার? অথচ সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদের হাতে তাকে জীবন দিতে হলো। তার বাবা মশিউল হক চৌধুরীও জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে। একটি সুখি পরিবার সন্ত্রাসী হামলায় শেষ হয়ে গেল।’
 
সম্প্রতি নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে জঙ্গি হামলার কথা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, ‘নিউজিল্যান্ডেও মসজিদে গুলি করে নারী-পুরুষ-শিশুসহ অনেককে হত্যা করা হলো। আমাদের ক্রিকেটররা অল্পের জন্য বেঁচে যায়। অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় নুসরাতকে আগুনে পুড়ে মরতে হলো। যেকোনও সমাজের জন্য এসব ঘৃণ কাজ অকল্যাণকর।’

ইসলাম ধর্মের নামে যারা জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস করে, তারা মানবজাতির কাছে মহান ইসলাম ধর্মকে হেয় প্রতিপন্ন করছে বলেও মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী। 

ইসলামকে শান্তির ধর্ম উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘হিন্দু, মুসলমান, খ্রিষ্টান, বৌদ্ধ- পৃথিবীর সকল ধর্মই শান্তির কথা বলেছে। অথচ ধর্মের নাম করে একদল ধর্মীয় উন্মাদ মানুষ মারছে। মানুষের জীবন কেড়ে নিচ্ছে।’

গেল কয়েক বছরে বাংলাদেশে জঙ্গি হামলার প্রসঙ্গ তুলে ধরে আওয়ামী লীগ সভাপতি আরও বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশের বোমা হামলা, জঙ্গি হামলাকে কঠোর হস্তে দমন করেছি। আমি এ ব্যাপারে দেশবাসীকে আরও সতর্ক ও সজাগ থাকার আহ্বান জানাই।’

এর আগে সন্ধ্যা পৌনে ৭টায় স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের অধিবেশন শুরু হয়। এর পর প্রশ্নোত্তর পর্বে বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রী।

ব্রেকিংনিউজ/এমআর

bnbd-ads