ভারতে মুসলিম হত্যার প্রতিবাদে ঢাকায় মানববন্ধন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
১৪ জুলাই ২০১৯, রবিবার
প্রকাশিত: ০৬:৩৫

ভারতে মুসলিম হত্যার প্রতিবাদে ঢাকায় মানববন্ধন

ভারতের নরেন্দ মোদীর হিন্দুত্ববাদী বিজেপি সরকার গঠনের পর থেকেই  সংখ্যালঘু মুসলিম নিয়মিত হত্যা ও নির্যাতন শুরু হয়। বর্তমান সময়ে এই হত্যাযজ্ঞ বেড়েছে। এর প্রতিবাদে রাজধানী ঢাকায় মানববন্ধন করেছে ইসলামী ঐক্যজোট।

রবিবার (১৪ জুলাই) বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ইসলামী ঐক্যজোট আয়োজনে ‘ভারতে মুসলিম হত্যা ও নির্যাতনের প্রতিবাদ’ শীর্ষক এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান বলেন, ‘বাংলাদেশের মুসলমানদের মতো ভারতের মুসলমানরা ও নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। অবিলম্বে ভারতে মুসলমানদের ওপর অত্যাচার নির্যাতন বন্ধ না হলে বাংলাদেশের মুসলমানরা ও রাজপথে নেমে আসবে।’

তিনি বলেন, ‘ভারতের মুসলমানদের আক্রান্ত করলে বাংলাদেশের মুসলমানদের ওপর আক্রান্ত করার শামিল। ভারতের মুসলমানদের ওপর হামলা করলে বাংলাদেশের মুসলমানরা আঙ্গুল চুষবে। কেননা কলকাতা আমাদের। এই কলকাতা এক সময় মুসলমানরা শাসন করেছে। ভারত বর্ষ আমাদের, এই ভারতবর্ষে এক সময় মুসলমানরা শাসন করেছে। শেরে বাংলা একে ফজলুল হক কলকাতার মেয়র ছিলেন।’

ইরান আরও বলেন, ‘বাংলাদেশের কতিপয় রাজনীতিবিদরা ভারতের দালালি করছে। সেজন্য বিভিন্ন সময়ে বাংলাদেশের মসজিদ, মন্দির, গির্জায় হামলা হয়েছে তারপরেও তারা নিশ্চুপ ভূমিকা পালন করেছে। কারণ এসব অধিকাংশ হামলার পেছনে জড়িত ছিল আওয়ামী লীগ-যুবলীগ-ছাত্রলীগের ক্যাডাররা। আজকে ১০ বছর হল আওয়ামী লীগ অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে আছে। তাদের শাসনামলে প্রতিমা পর্যন্ত চুরি হয়েছে হিন্দুদের মন্দিরের জায়গা তাদের শ্মশান ঘাটের জায়গায় আওয়ামী লীগের মন্ত্রী-এমপিরা দখল করে নিয়েছে।’

মানববন্ধনে ইসলামী ঐক্যজোটের কেন্দ্রীয় নেতা মাওলানা শওকত আমিন, ডেমোক্রেটিক লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফ উদ্দীন মনির, কৃষক দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন, ফিউচার অব বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক শওকত আজিজ, গণতন্ত্র রক্ষা মঞ্চের সভাপতি শাজাহান কামাল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ব্রেকিংনিউজ/ এএইচএস/ এসএ