সুতা দিয়ে ‘পুতুল নাচানো’ হচ্ছে, ‘আসল জিনিস’ পর্দার পেছনে: আলাল

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার
প্রকাশিত: ০২:২৪ আপডেট: ০৪:০৪

সুতা দিয়ে ‘পুতুল নাচানো’ হচ্ছে, ‘আসল জিনিস’ পর্দার পেছনে: আলাল

চাঁদাবাজী ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরকারের চলমান অভিযানের কথা উল্লেখ করে বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেছেন, ‘একটি কথা আজকে পরিষ্কার করে বলতে চাই যে, যেগুলো হচ্ছে যেগুলো আমরা দেখছি মিডিয়ায় এবং বিভিন্ন জায়গায় যেগুলো আলোচনা হচ্ছে এগুলো হচ্ছে পুতুল নাচ। এই পুতুল নাচের পেছনে বসে যারা কলকাঠি নাড়ছে তারাই আসল সমস্যা বা আসল জিনিস কি রয়েছে পর্দার পেছনে সেগুলো ঢাকার জন্য এই পুতুল নাচানাচি শুরু করে দিয়েছেন। এগুলো হচ্ছে শুধুমাত্র উপলক্ষ। বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির লড়াইয়ে দেশের মানুষ যখন সংগঠিত এবং প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হচ্ছেন সেই মুহূর্তে দৃষ্টিটাকে অন্যদিকে সরিয়ে পেছন থেকে সুতা দিয়ে পুতুল নাচানো হচ্ছে।’

শনিবার (২১ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জাতীয়তাবাদী ওলামা দলের আয়োজনে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

যুবদলের সাবেক সভাপতি আলাল বলেন, ‘যদি সেটি না হয়ে থাকে তাহলে এই কথাগুলো কেন আসছে অমুকে এই দলে ছিল তমুকে ওই দলে ছিল, এটা তো কোনো যুক্তি হতে পারে না। অপরাধীদের কোনো দল নেই। সমাজের শত্রুদের কোন পরিচয় নেই, এরা সমাজের শত্রু। এখানে আজ ওলামা দল সমাবেশ করছে, তারা আমাদের চেয়ে ভালো জানেন। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মহামানব হযরত মুহাম্মদ (স.) উনার ওফাতকালীন সময়ে বলে গিয়েছিলেন উনার পরনের জুব্বাটি হযরত ওয়াসকুরানী (রা.) কে প্রদান করা হোক। সেই দায়িত্ব পালনের জন্য ইসলামের দ্বিতীয় খলিফা হযরত ওমর (রা.) হযরত আলী (রা.)কে সাথে নিয়ে অনেক দূর গিয়ে হযরত ওয়াসকুরানী (রা.) কে খুঁজে বের করে এবং তাকে জুব্বাটি দিয়ে তার সঙ্গে নামাজ আদায় করে। হযরত ওমর (রা.) কে হযরত ওয়াসকুরানী (রা.) জিজ্ঞেস করে বলেছিলেন আমাকে আপনি কিছু ওসিয়ত করে দেন উপদেশ দেন। তখন হযরত ওমর (রা.) বলেছিলেন একটা ওসিয়ত একটাই উপদেশ আপনার জন্য এই কথাটা মনে রাখবেন কোন ন্যায়পরায়ন শাসকের ‘একদিনের ন্যায়বিচার’ হাজার বছরের ইবাদতের চেয়ে উত্তম। আজকে কি এই সরকার সেই পথে আছে?’

তিনি আরও বলেন, ‘আজকের প্রধানমন্ত্রী সংসদে দাঁড়িয়ে বলেন- মদিনা সনদের ভিত্তিতে সংসদ পরিচালিত হচ্ছে। মদিনা সনদে কি ছিল? মদিনা সনদে ছিল কোনো ব্যক্তি যদি অপরাধ করে সেজন্য তার গুষ্টিকে তার সম্প্রদায়কে তার দলকে দায়ী করা যাবে না। আপনি (প্রধানমন্ত্রী) কি সেটি করছেন। আপনি যদি সেই পথ অনুসরণ করতেন তাহলে আজকে বিনা অপরাধে বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে থাকতেন না। তারেক রহমান দেশের বাইরে থাকতেন না।’

তিনি বলেন, ‘এই যে পুতুল নাচ করানো হচ্ছে এর জন্য শুধু আমি একটি কথাই বলতে চাই। প্রতিবাদের কণ্ঠ যতই স্তব্ধ করতে চাইবেন যত ধমক দিবেন যত মাইকে প্রচার করার চেষ্টা করবেন একটা জিনিস মনে রাখবেন- বিষ্ঠা কখনো চাপা দিয়ে দুর্গন্ধ ঢাকা যায় না, এই দুর্গন্ধ ছড়াবেই। আজকে তাই আমরা বলতে চাই- আজকে এই প্রতিবাদী মানববন্ধন এর মধ্য দিয়ে সারা দেশে যে অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে এই অপশাসনের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে স্বাধীনভাবে কাজ করতে না দিলে এই সরকারের পরিণতি আরও অনেক বেশি করুণ হবে, অনেক বেশি মর্মান্তিক হবে।’

আয়োজক সংগঠনের আহবায়ক হাফেজ মাওলানা শাহ মোহাম্মদ নেসারুল হকের সভাপতিত্বে এবং সদস্য সচিব অধ্যক্ষ নজরুল ইসলামের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আযাদ, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মোহাম্মাদ রহমাতুল্লাহ প্রমুখ বক্তব্য দেন।

ব্রেকিংনিউজ/এএইচ/ এসএ 

bnbd-ads