যুক্তরাজ্যেও জুয়ায় আসক্ত অনেক বাংলাদেশি

প্রবাস ডেস্ক
২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার
প্রকাশিত: ০৩:৪৪

যুক্তরাজ্যেও জুয়ায় আসক্ত অনেক বাংলাদেশি

বাংলাদেশে এখন নতুন ইস্যুর নাম ‘ক্যাসিনো বা জুয়া’। রাজধানী ঢাকাতে এই অবৈধ জুয়ার আসরের বিরুদ্ধে সাড়াশি অভিযানে নেমেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। দেশের মানুষের কাছে ‘ক্যাসিনো’ নামটি নতুন মনে হলেও যুক্তরাজ্য প্রবাসী বাংলাদেশিদের কাছেও মোটেও নতুন নয়, সেখানকার অনেক প্রবাসীও সর্বনাশা এই খেলায় আসক্ত।

এই নেশায় বাংলাদেশিরা এতোটাই আসক্ত যে  ব্রিটেনে বসবাসরত বাংলাদেশি বেশির ভাগ পরিবারের কাছে আতঙ্কের নাম এই ক্যাসিনো। এই জুয়ার হত্যাকাণ্ডের মতো ঘটনাও ঘটেছে বাংলাদেশিদের মধ্যে।

গত জুলাই মাসে দুই বাংলাদেশিকে হত্যা নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বিবিসি ও রয়টার্স। ক্যাসিনো খেলার জন্য ১১ জুলাই স্ত্রীর কাছ থেকে টাকা চেয়ে না পেয়ে বাংলাদেশি জুয়াড়ি জালাল উদ্দিন (৪৭) তার স্ত্রী আসমা বেগমকে (৩১) ৫৮ বার ছুরিকাঘাত করে হত্যা করে।

সেখানকার ক্যাসিনো ক্লাবগুলোতে দেখা মিলবে বাংলাদেশিদের। সপ্তাহের শেষ দিন রবিবার কিংবা শুরুর দিন সোমবার মানেই ক্যাসিনো বা জুয়ার আসরগুলোর চারপাশে চোখ বুলালেই দেখা মিলবে অনেক বাঙালির।

ক্যাসিনোতে কাজ করে এমন কয়েকজন জানায়, বাঙালিরা অল্প টাকা নিয়ে জুয়া খেলতে আসে। বেশিরভাগই সব টাকা হারিয়ে যায়। আর এখানকার জুয়ায় আসক্তদের বড় একটি অংশ হচ্ছে ২৫ থেকে ৪০ বছর বয়সী। এ ছাড়া অনেক বয়স্ক লোকও নিয়মিত এসব জুয়ার ঘরে গিয়ে থাকে।

অন্যদিকে ইস্ট লন্ডনের জুয়ার ঘরে বেশির ভাগ সাউথ এশিয়ান আসে। তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য আবার বাংলাদেশি। সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য বিষয় হচ্ছে এদের মধ্যে অনেক বাঙালি নারীও আসে জুয়া খেলতে। বাজির দোকানগুলোতে ফুটবল, ক্রিকেট, ইলেকশন ইত্যাদি শত শত বিষয়ে বাজি ধরার সুযোগ থাকলেও বাঙালি বয়স্করা ঘোড়ার দৌড়েই বাজি ধরে বেশি। তরুণরা ফুটবলে বাজি ধরার ব্যাপারে আগ্রহী বেশি।

উইকিপিডিয়ার দেওয়া তথ্যমতে, লাইসেন্সকৃত মোট নয় হাজার জুয়ার ঘর রয়েছে পুরো ব্রিটেনে। বছরে ১৪ বিলিয়ন পাউন্ডের জুয়া খেলা হয় ব্রিটেনজুড়ে। বাংলাদেশি টাকায় সেটা প্রায় এক লাখ ৫৪ হাজার ৪৫ কোটি টাকা।

ব্রিটেনে সবচেয়ে বেশি বাংলাদেশি বসবাস করে টাওয়ার হ্যামলেট এলাকায়। গত বছর টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, তিন লাখ বাসিন্দার এই কাউন্সিলে রয়েছে মোট ৯০টি জুয়ার দোকান। এই কাউন্সিলে বাংলাদেশি রয়েছে লক্ষাধিক যা মোট জনসংখ্যার এক তৃতীয়াংশ। কাউন্সিলের জুয়া বিষয়ক রিপোর্টে বলা হয়েছে, শুধু টাওয়ার হ্যামলেটেই রয়েছে ছয় হাজার নিয়মিত জুয়াড়ি। এর মধ্যে অন্তত তিন হাজারের বেশি বাংলাদেশি জুয়ায় আসক্ত।

ব্রেকিংনিউজ/ এসএ