নাটোরে ভুল চিকিৎসায় রোগী মৃত্যুর অভিযোগে আটক ২

জেলা প্রতিনিধি
৬ অক্টোবর ২০১৯, রবিবার
প্রকাশিত: ০৩:০১ আপডেট: ০৩:০২

নাটোরে ভুল চিকিৎসায় রোগী মৃত্যুর অভিযোগে আটক ২

নাটোরের বড়াইগ্রামের বনপাড়ায় ভুল অপারেশনে সুমাইয়া নামে এক স্কুল ছাত্রীর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। গতকাল শনিবার অপারেশনের পর রবিবার (৬ অক্টোবর) সকালে মারা যান ওই ছাত্রী। ঘটনাটি ঘটেছে বড়াইগ্রামের হেলথ কেয়ার জেনারেল হাসপাতাল নামে একটি বেসরকারী ক্লিনিকে।

এদিকে ভুল অপারেশনে রোগী মৃত্যুর অভিযোগে হাসপাতালটি সিলগালা করে দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। এ ঘটনায় হাসপাতালের মালিক ও উপজেলার নটবাড়িয়া গ্রামের অসিম উদ্দিনের ছেলে আরশেদ আলীসহ ২ জনকে আটক করেছে পুলিশ। 

নিহত সুমাইয়া বড়াইগ্রাম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ শ্রেনীর শিক্ষার্থী ও উপজেলার তালশো গ্রামের রাহাবুল ইসলামের মেয়ে। 

নিহতের পরিবারের অভিযোগ, গতকাল শনিবার রাতে সুমাইয়াকে অ্যাপেনডিসাইটিস অপারেশনের জন্য ওই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাত ৮ টার দিকে সেখানে ডা. সামিরা তাবাসসুম সাথীর তত্বাবধানে অপারেশন করা হয়। পরে রাতে রোগী অসুস্থ্য হয়ে পড়লে রাত ৩টার দিকে তাকে চিকিৎসক ইনজেকশন পুশ করেন। এর ঘন্টাখানেক পর সে মারা যায়। এরপর থেকে চিকিৎসক পলাতক রয়েছেন। 

রবিবার (৬ অক্টোবর) সকালে নিহতের পরিবারের লোকজন পুলিশে খবর দিলে আরশেদ আলীকে আটক করে পুলিশ। এর আগে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আনোয়ার পারভেজ হাসপাতাল পরিদর্শন শেষে তা সিলগালা করার নির্দেশ দেন। পরে মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন। 

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহি অফিসার আনোয়ার পারভেজ জানান, হাসপাতালটির কোন কাগজপত্র ঠিক নাই। আবাসিক মেডিকেল অফিসার নাই এবং পরীক্ষার যন্ত্রপাতি যথার্থ না থাকায় হাসপাতালটি সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে। 

উল্লেখ্য যে, এর আগেও ওই হাসপাতালে ভুল অপারেশনে রোগী মারা যাওয়ার অভিযোগ রয়েছে। নিহতের স্বজনরা জানান, অপারেশন থিয়েটারে অ্যানেসথেসিয়ার কোন চিকিৎসক ছিলো না। এছাড়া ডা. সাথী ইন্টার্নি চিকিৎসক বলেও জানা গেছে।

ব্রেকিংনিউজ/এম