আদিতমারীতে ছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে শিক্ষক আটক

নুরনবী সরকার, লালমনিরহাট প্রতিনিধি
২৯ আগস্ট ২০১৯, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: ০৭:২৮ আপডেট: ০৭:৩০

আদিতমারীতে ছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে শিক্ষক আটক
ফাইল ছবি

লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলায় তৃতীয় শ্রেনীর এক ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে নীলকান্ত রায় (৪৮) নামে এক শিক্ষককে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয়রা।

বৃহস্পতিবার (২৯ আগস্ট) বিকেলে বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষে ওই শিক্ষককে আটক করে থানায় সোপর্দ করেন স্থানীয়রা। আটক শিক্ষক নীলকান্ত রায় উপজেলার কমলাবাড়ি ইউনিয়নের চন্দনপাট এলাকার মৃত বষন্ত কুমারের ছেলে। তিনি উপজেলার বুড়িদিঘী আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, বুড়িদিঘী আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রীকে (৯) ক্লাশ শুরুর আগে শ্রেণি কক্ষ পরিস্কার করতে ডেকে নেন বিদ্যালয়টির সহকারী শিক্ষক নীলকান্ত রায়। এ সময় ওই শ্রেণি কক্ষে অন্য কোনও শিক্ষার্থী ছিলো না। এ সুযোগে ওই ছাত্রীকে বেঞ্চের উপর শুইয়ে বিবস্ত্র করে ধর্ষণের চেষ্টা করে শিক্ষক নীলকান্ত রায়। পরে ছাত্রীর আত্ম-চিৎকারে অন্যান্য শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা এসে হাতেনাতে শিক্ষক নীলকান্তকে আটক করে। 

খবর পেয়ে স্থানীয়রা এসে শিক্ষকের বিচার দাবিতে বিদ্যালয় মাঠে বিক্ষোভ করেন। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে অভিযুক্ত শিক্ষক নীলকান্ত রায়কে থানায় নিয়ে আসেন। খবর পেয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার(ভারপ্রাপ্ত) হরে কৃষ্ণ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। 

এ ঘটনায় বিচার চেয়ে ওই স্কুল ছাত্রীর নানা বাদী হয়ে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে আটক শিক্ষক নীলকান্ত রায়ের বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার বিকেলে আদিতমারী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। 

বুড়িদিঘী আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আশরাফুজ্জামান মোরশেদ বলেন, ‘ইতোপূর্বে একই অভিযোগে হাজতবাস করেন সহকারী শিক্ষক নীলকান্ত রায়। যার কারণে সাময়িক বরখাস্ত থাকার পরে সাম্প্রতিক সময় আদালতে রায়ে তার বরখাস্তাদেশ বাতিল করা হয়। এরপরেও তিনি চারিত্রিক ভাবে নিজেকে সংশোধন করতে পারেননি। ফলে আবারও একই অভিযোগে শিক্ষার্থীরাই তাকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন।’

আদিতমারী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘ওই ছাত্রীর অভিভাবকের দায়ের করা মামলায় শিক্ষককে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে তদন্ত চলছে বলেও জানান তিনি।’

ব্রেকিংনিউজ/জেআই