ইসলামের খেদমতে অজি উল্লাহর পাঁচ যুগ

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি
২৮ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার
প্রকাশিত: ০৩:০২ আপডেট: ০৩:০২

ইসলামের খেদমতে অজি উল্লাহর পাঁচ যুগ

ইসলামের অন্যতম সৌন্দর্য ও নিদর্শন হলো আজান। আজানের মাধ্যমে মহান আল্লাহ তায়ালার একাত্মবাদ, বড়ত্ব ও সার্বভৌমত্বের স্বীকৃতি প্রদান করা হয়। দৈনিক পাঁচবার আজানের সুমধুর তানে মুমিনের হৃদয়ে ইমানের জোয়ার আসে, আল্লাহ প্রেমে সিক্ত হয় মুমিনের অন্তরাত্মা। আজান শোনামাত্র মুসলমানগণ সব ভেদাভেদ ভুলে মসজিদে গিয়ে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে জামাতে নামাজ আদায় করার জন্য দাঁড়ায়।

আর সে অপূর্ব দৃশ্য অবলোকন করে যুগে যুগে অগণিত অমুসলিম ইসলামের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে ইমানের শরাব পান করে ধন্য হয়েছেন।  মহান আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কোরআনে ইরশাদ করেন, আর যখন তোমরা নামাজের দিকে আহ্বান কর (আজান দাও), তখন তারা (কাফেররা) একে হাসি-তামাশা ও ক্রীড়া-কৌতুক হিসেবে গ্রহণ করে। এর কারণ হচ্ছে তারা এমন সম্প্রদায়, যাদের বুদ্ধি-বিবেক নেই। (সূরা মায়েদা, আয়াত-৫৮)।
 
মহান আল্লাহ তায়ালা এ সম্পর্কে আরো ইরশাদ করেন, হে মুমিনগণ! যখন জুমার দিনে নামাজের জন্য আহ্বান করা হয় (আজান দেওয়া হয়), তখন তোমরা আল্লাহর স্মরণের দিকে (নামাজের দিকে) ধাবিত হও। আর ক্রয়-বিক্রয় বর্জন কর। এটাই তোমাদের জন্য উত্তম, যদি তোমরা জানতে। (সূরা জুমা, আয়াত-০৯)।
 
মুয়াজ্জিন হচ্ছে মানুষদেরকে আল্লাহ কথা স্মরণ করে মসজিদের দিকে ডাকে। এজন্য মসজিদ পরিচালকরা নিদিষ্ট ব্যক্তি নিয়োগ দেয়। তাকে বেতন পরিশোধ করতে হয়।

তবে এমনও ব্যক্তি আছেন, যারা আজান দিতে ভালোবাসেন। তবে কোনো অর্থের বিনিময়ে নয়। আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য। বেতন ছাড়াই মো. অজি উল্লাহ চৌধুরী নামের এক ব্যক্তি টানা ৬০ বছর বিভিন্ন মসজিদের আজান দিচ্ছেন। তার আজানের সুর মধুর। অধিকাংশ সময় তিনি মাইক ছাড়া আজান দিয়েছেন। উচ্চস্বরের অধিকারী অজি উল্লাহর আজান স্থানীয়রা দূর থেকেও শুনতে পারেন।

অজি উল্লাহ (৮০) লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার উত্তর টুমচর গ্রামের মৃত মৌলভী আলী আহম্মদের ছেলে। ১৯৪০ সালে জন্ম গ্রহণ করেন তিনি। বিশ বছর বয়স থেকে আজান দেন তিনি। তবে বয়সের ভারে এখন তার কণ্ঠস্বর কিছুটা অস্পষ্ট।

অজি উল্ল্যাহ চৌধুরী ১৯৫৬ সালে এসএসসি পাশ করেন। পরে তিনি ১৬ নম্বর শাচকর ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডে দুবার মেম্বার নির্বাচিত হয়েছেন।

১৯৯৮ সালে সদর উপজেলার উত্তর টুমচর জালাল পাটওয়ারী জামে মসজিদ প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে ২১ বছর আজান দিয়েছেন তিনি। এছাড়াও বিভিন্ন সময় তিনি শাকচর গনুমিয়া মৌলভী জামে মসজিদ, উত্তর টুমচর আব্দুল মজিদ জামে মসজিদ ও শাকচর ছহি মিজি জামে মসজিদ দীর্ঘ কয়েক বছর আজান দিয়েছিলেন। তিনি ঢাকাসহ দেশের বিভিন্নস্থানে আত্মীয়-স্বজনদের বাসায় গেলে সেখানের স্থানীয় মসজিদে আজান দিতেন। 

অজি উল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘আমার শখ ছিলো পবিত্র মক্কা শরীফে আযান দেয়ার। কিন্তু পারিনি। তবে ২০০৫ সালে হজ্ব পালন করেছি।’

‘আল্লাহর পথে মানুষকে ডেকে আনা অনেক সওয়াবের কাজ। আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনই আমার উদ্দেশ্য। এর থেকে অন্য কোনো চাহিদা আমার নেই। যতদিন শক্তি থাকবে ততদিন আজান দিবো। ছেলে-মেয়েরা ঢাকায় থাকে। সেখানে গেলে স্থানীয় মসজিদে আযান দিতেন বলেও জানান তিনি।

ব্রেকিংনিউজ/এমজি

breakingnews.com.bd
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি