অপ্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ৪ ভিডিও গেম নিষিদ্ধ

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
২২ আগস্ট ২০১৯, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: ১০:৫৬ আপডেট: ০১:২২

অপ্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ৪ ভিডিও গেম নিষিদ্ধ

তথ্য-প্রযুক্তির এই যুগে বিনোদন আর আড্ডার বিকল্প মাধ্যম হয়ে উঠেছে ভিডিও গেম। মোবাইল কিংবা ল্যাপটপের সামনে বসে ঘণ্টার পর ঘণ্টা না খেয়েও এই খেলা নিয়ে মগ্ন থাকা যায়। আর এই গেম বিশেষত কিশোর-কিশোরীদের মানসিক বিকাশের ক্ষেত্রে বিঘ্ন ঘটাচ্ছে। 

আর তাইতো প্রাপ্ত বয়স্ক নয় এমন নাগরিকদের জন্য অস্ট্রেলিয়ায় গত তিন মাসে অন্তত চারটি ভিডিও গেম নিষিদ্ধ করা হয়েছে। 

যাদের বয়স ১৮ বছরের কম বা প্রাপ্তবয়স্ক নয় এমন নাগরিকদের জন্য এ ভিডিও গেমগুলো নিষিদ্ধ করেছে অস্ট্রেলিয়ান শ্রেণিবদ্ধকরণ বোর্ড (এসিবি)।

দেশটির স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, ভিডিও গেমের শ্রেণিবদ্ধকরণ নিয়ে দেশটি অনেক দিনের সমস্যা কাটিয়ে উঠার চেষ্টা করছে। ২০১৩ সাল পর্যন্ত ‘কেবলমাত্র বয়স্ক’ বা সমমানের ‘এও’ রেটিং ছিলো না। তখন পর্যন্ত কিছু কিছু ভিডিও দেশটির নাগরিকদের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছিলো। কিন্তু ভিডিও গেমস নয়। 

পরে ‘প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য সীমাবদ্ধ’ শ্রেণিবদ্ধকরণে ভিডিও গেমসকে অন্যভাবে দেখা হতো। মানুষের মনে বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে বলে মনে করা হয়। 

‘প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য সীমাবদ্ধ’ শ্রেণিবদ্ধকরণটি চালু করা পরই অস্ট্রেলিয়া বেশ কয়েকটি ভিডিও গেম নিষিদ্ধ করা হয়। 

চলতি মাসের শুরুর দিকে ডেজেড নামের একটি ভিডিও গেম নিষিদ্ধ করা হয়। এর পর স্থানীয় সময় গেল মঙ্গলবার উই হ্যাপি ফিউ, হটলাইন মিয়ামি এবং বনাইরি নামের আরও তিনটি গেম নিষিদ্ধ করে এসিবি। 

এসিবি পরিচালক মার্গারেট অ্যান্ডারসন জনান, গেমগুলোতে মাদক ব্যবহার করায় বাস্তবেও অপ্রাপ্ত বয়সী নাগরিকরা মাদক গ্রহণে ঝুঁকে পড়ছে। কিছু কিছু ভিডিও গেম মানুষের মনে বিরূপ প্রভাব ফেলছে। মানসিক বিকাল বাধাগ্রস্ত করছে। তাই এইসব গেম নিষিদ্ধ করে দেয়া হয়েছে।

ব্রেকিংনিউজ/এমআর