bnbd-ads
bnbd-ads

কালের সাক্ষী হয়ে থাকা ক্রিকেট মাঠের বিরল কিছু ছবি

স্পোর্টস ডেস্ক
১২ জুন ২০১৯, বুধবার
প্রকাশিত: ১১:১৭ আপডেট: ০২:৩৯

কালের সাক্ষী হয়ে থাকা ক্রিকেট মাঠের বিরল কিছু ছবি

টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসটা দেড়শো বছর হতে চললো। তবে ওয়ানডের যাত্রাটা শুরু আরও অনেক পরে। রঙিন পোশাকে তো তারও পরে। ১৯৭৫ সাল থেকে প্রথম শুরু হয়েছিল বিশ্বকাপ। এরপর এক এক করে ১১টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর মধ্যে ৫ বারই শিরোপা ঘরে তুলেছে অস্ট্রেলিয়া। এবার রানির দেশে বসেছে রাজার বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসর। 

কিন্তু গত ১১টি বিশ্বকাপই শুধু নয়, ক্রিকেট মাঠে ও মাঠের বাইরে ক্রিকেট নিয়ে অদ্ভূত কিছু দৃশ্যের অবতারণা হয়েছে বিভিন্ন সময়। সেইসব দৃশ্য এখনও ক্রিকেট দুনিয়ার চোখে লেগে আছে। আছে কালের সাক্ষী হয়ে। থাকবে আরও বহুকাল।

বিশ্বকাপ ঘিরে এমনই কিছু মুহূর্তের বিরল স্থিরচিত্র ব্রেকিংনিউজ পাঠকের জন্য তুলে ধরা হলো: 

ষোড়শ শতাব্দিতে ইংরেজদের মাধ্যমে এই ক্রিকেটের উৎপত্তি হয়। তখন শুধুমাত্র টেস্ট ক্রিকেট খেলা হত। তৎকালীন সময়ে ক্যাপটেন ডেনিস লিলি একটি টেস্ট ক্রিকেটে তার ফিল্ডিং সাজানোয় অভিনবত্ব দেখিয়েছিলেন। নিউজিল্যান্ডের সাথে হওয়া সেই খেলায় তিনি স্লিপে ৯ জন ফিল্ডার দাঁড় করিয়ে দিয়েছিলেন। প্রাচীন সেই ক্রিকেট ইতিহাস আজও সবার জন্য এক অন্যতম আকর্ষণ।


জীবনের শেষ টেস্ট খেলতি নেমেছিলেন সর্বকালের সেরা ব্যাটসম্যান স্যার ডোনাল্ড। মাত্র ৪ রান হলেই তার ব্যাটিং গড় হয়ে যেতো পুরোপুরি ১০০। কিন্তু তিনি সেই ম্যাচে ০ রান করেই আউট হয়ে যান।


পাকিস্তানি ব্যাটিং কিংবদন্তি ও বড় মিয়া বলে খ্যাত জাভেদ মিয়াদাদ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলার সময় অস্ট্রেলিয়ার ডেনিস লিলির কারণে রান নিতে পারেননি। মিয়াদাদ তখন প্রচুর রেগে তার হাতের ব্যাট দিয়ে ডেনিস লিলিকে আঘাত করার জন্য উদ্যত হন।


মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়া স্টেডিয়াম। ইতিহাসের সেরা ব্যাটসম্যান লিটল মাস্টার শচীন টেন্ডুলকার জীবনের শেষ টেস্ট খেলতে ব্যাট হাতে মাঠে নামছেন। 


২০০৪ সালে টেস্ট ইতিহাসের প্রথম ৪০০ রানের ইনিংস খেলার পর এভাবেই পিচকে চুম্বন করেন ক্রিকেটের বরপুত্র ব্রায়ান লারা।


ক্রিকেটের বিরল দৃশ্যের মধ্যে এটা খুবই বিরল। সাবেক ভারতের ক্রিকেটার বিশ্বনাথের ১০০ হাঁকানোর পর ইংল্যান্ডের সাবেক কিংবদন্তি টনি গ্রেগ কোলে তুলে তাকে অভিনন্দন জানান।


প্রকৃতির তাণ্ডবলীলায় ২০০৪ সালে সুনামিতে প্রায় ধ্বংসই হয়ে গিয়েছিল শ্রীলংকার ঐতিহ্যবাহী গল স্টেডিয়াম।


পাকিস্তানের ইনজামামুল হককে রান আউট করার জন্য দক্ষিণ আফ্রিকান কিংবদন্তি ফিল্ডার যেন এক বাজপাখি।


সতীর্থ ব্যাটসম্যানের জন্য নিজেকে উজাড় করে দেন ল্যারি গোমেজ। সতীর্থ ১০০ থেকে মাত্র ৪ রান দূরে। তাই তাকে সাহায়্য করার জন্য তিনি এক হাতে ব্যাট করেন। কারণ তার অপর হাতটি ভাঙা ছিল।


ক্রিকেট মাঠে হঠাৎ আক্রমণ করে মৌমাছি। তাদের হাত থেকে রক্ষার জন্য এভাবেই মাটিতে শুয়ে পড়েন সকল খেলোয়ার সহ আম্পায়ার।


পাকিস্থানের  গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে সন্ত্রাসী হামলা। নিরাপদে বাড়ি ফেরার উদ্দেশে হেলিকপ্টারের দিকে যাচ্ছেন শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটাররা।


তিন কিংবদন্তি একই ফ্রেমে। (ডান থেকে) লিটল মাস্টার জিনিয়াস শচীন টেন্ডুলকার, কিংবদন্তি স্যার ডোনাল্ড ব্র্যাডম্যান এবং স্পিন কিংবদন্তি শেন ওয়ার্ন ।


নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে আন্ডার আর্ম। অর্থাৎ গড়ানো বল। বলটি করেছিলেন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক বলার ট্রেভভর চ্যাপেল। সেই সময় ১ বলে দরকার ছিল ৬ রান ।

এখন ডাগআউট সহ নানা অত্যাধুনিক ব্যবস্থা থাকে ক্রিকেটাদের বিরতি ও বিশ্রামের জন্য। কিন্তু উনিশ শতকের ক্রিকেটে বিরতিতে থাকতো এমনই দৃশ্য। মাঠেই পরিবেশন করা হতো খাবার। 


সর্বকালের সেরা ক্রিকেটার লিটল মাস্টার শচীন টেন্ডুলকারের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে শতকের শতক করার পর।


১৯৯৮ সালে হায়দরাবাদের লাল বাহাদুর শাস্ত্রী স্টেডিয়ামে ১২ বছরের অপেক্ষা ঘুটিয়ে ওই ম্যাচে নিজেদের ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসে প্রথম জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ।

তথ্যসূত্র ও ছবি: ইন্টারনেট, ওয়েবসাইট

ব্রেকিংনিউজ/এমআর