হাথুরুকে বরখান্ত করতে বললেন লঙ্কান ক্রীড়ামন্ত্রী!

স্পোর্টস ডেস্ক
২৩ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার
প্রকাশিত: ১০:৫৫ আপডেট: ১০:৫৬

হাথুরুকে বরখান্ত করতে বললেন লঙ্কান ক্রীড়ামন্ত্রী!

বাংলাদেশ দলের দায়িত্ব ছেড়ে নিজ দেশ শ্রীলঙ্কায় হিরো হতে চেয়েছিলেন একবার বরখাস্ত হওয়া চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। কিন্তু হিরো নয় ভিলেন হয়ে রইলেন তিনি। ক্রিকেট বিশ্বকে দেখিয়ে দেয়া তো দূরের কথা শ্রীলঙ্কা দলকে মোটে সঠিক পথ দেখাতে পারেননি তিনি।  

যে কারণে, খুব অল্প সময়ের মধ্যেই কোচ হাথুরুসিংহের সঙ্গে মধুচন্দ্রিমার অবসান ঘটে গেছে লঙ্কান ক্রিকেটের। বিশ্বকাপের আগে থেকেই তার শ্রীলঙ্কার কোচ থাকা না থাকা নিয়ে চলছে জোর গুঞ্জন। বিশ্বকাপের পর নানা মিডিয়ায় খবর আসছে চন্ডিকা হাথুরুসিংহেকে শ্রীলঙ্কা দলে না থাকার জন্য বলে দেয়া হয়েছে। কিন্তু তিনি নিজের ইচ্ছায় নাকি কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়াবেন না।

তবে, এবার চরম বার্তাটি তিনি পেয়ে গেছেন শ্রীলঙ্কার ক্রীড়ামন্ত্রী হারিন ফার্নান্দোর কাছ থেকে। বিশ্বকাপে বাজে পারফরম্যান্স করার জন্য কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের নেতৃত্বাধীন পুরো কোচিং প্যানেলকে বরখাস্ত করার জন্য শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডকে নির্দেশ দিয়েছেন ক্রীড়ামন্ত্রী হারিন ফার্নান্দো।

ক্রীড়ামন্ত্রীর নির্দেশ সত্ত্বেও লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডের সেক্রেটারি মোহন ডি সিলভা জানিয়ে দিয়েছেন, কোচ নিয়ে হুট-হাট কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া যাবে না। কারণ, এর সঙ্গে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটের সুনাম এবং সম্মান জড়িত। একই সঙ্গে ভবিষ্যতে ভালো কোচ পাওয়া না পাওয়ার বিষয়েও বিষয়টা প্রভাব ফেলতে পারে।

ডি সিলভা জানিয়েছেন, ক্রীড়ামন্ত্রী হারিন ফার্নান্দো লিখিতভাবে তাদেরকে অনুরোধ জানিয়েছেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহের ব্যপারে কঠোর সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য। তবে আইনগতভাবেই বিষয়টা সামলানোর জন্য তিনি একই সঙ্গে জানিয়েও দিয়েছেন। লঙ্কান বোর্ডের সেক্রেটারি বলেন, ‘কিন্তু আমরা জানি, এটা হচ্ছে একটা জটিল সমস্যা। কারণ আমরা পেশাদারিত্বের সঙ্গেই সব কিছু সামলে নিচ্ছি। আমরা জানি, শ্রীলঙ্কার একটা দুর্নাম রয়েছে যে, গত কয়েক বছরে আমরা কোচ ডেকে এনে আবার অসম্মানের সঙ্গে বিদায় করি। আমরা আমাদের দায়িত্ব সম্পর্কে জানি এবং আমরা অবশ্যই মন্ত্রীর অনুরোধ কিংবা পরামর্শেরও বাইরে যাবো না।’

ডি সিলভার এই কথাতেই স্পষ্ট, যে কোনো উপায়েই হোক, শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটের সঙ্গে চন্ডিকা হাথুরুসিংহের অধ্যায় শেষ হতে আর খুব বেশি বাকি নেই।

ব্রেকিংনিউজ/এএফকে