আমাজন বাঁচানোর আহ্বান ফুটবলারদের

স্পোর্টস ডেস্ক
২৪ আগস্ট ২০১৯, শনিবার
প্রকাশিত: ০৮:২৬ আপডেট: ০৮:৪৩

আমাজন বাঁচানোর আহ্বান ফুটবলারদের

গত এক দশকের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ দাবানলের আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে যাচ্ছে পৃথিবীর ফুসফুস’ খ্যাত আমাজন বনাঞ্চল। বিশ্বের ২০ শতাংশেরও বেশি অক্সিজেন আসে আমাজন থেকে। সারাবিশ্বের পরিবেশবাদীরা এই বন বাঁচানোর জন্য নানা কর্মকাণ্ড করে যাচ্ছে। বসে নেই ক্রীড়াঙ্গন। ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো, লুইস সুয়ারেস কিংবা পাওলো দিবালার মতো তারকারা আমাজনের জঙ্গল বাঁচানোর আহ্বান জানিয়েছেন। সকলকেই এই আগুন নেভানোর দায়িত্ব গ্রহণের আহ্বান জানিয়েছেন তারকারা।

ল্যাটিন আমেরিকার প্রায় ৪০ শতাংশ জায়গাজুড়ে আমাজন বনের বিস্তার। ল্যাটিন ফুটবলাররা তাই এই ভয়াবহ আগুন নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন। আর্জেন্টিনা ও জুভেন্টাসের তারকা ফরোয়ার্ড পাওলো দিবালা টুইটারে লিখেছেন, ‘আমাজন পুড়ছে। আমাজন শুধু দক্ষিণ আমেরিকার নয় এটা সবার। আর এটা পৃথিবীর ফুসফুস যা আমাদের গ্রহকে ২০ শতাংশ অক্সিজেন সরবরাহ করে থাকে। এটা সারা বিশ্বের বন তাই আমাদের ভবিষ্যৎ পুড়ছে। আমাদের সবাইকে কিছু করতে হবে।’

বার্সেলোনার উরুগুইয়ান মহাতারকা লুইস সুয়ারেস টুইটারে লিখেছেন, ‘আমাজনের জন্য প্রার্থনা। আমাদের পৃথিবীর ফুসফুসের জন্য আরও শক্তি চাই। আসুন সবাই মিলে লড়াই করি।’ 

জুভেন্তাসের পর্তুগিজ সুপারস্টার ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো আহ্বান জানিয়েছেন সবাইকে এগিয়ে আসার। তিনি লিখেছেন, ‘বিশ্বের ২০ শতাংশেরও বেশি অক্সিজেন সরবরাহ করে থাকে আমাজন আর তা পুড়ছে গত তিন সপ্তাহ ধরে। আমাদের গ্রহকে বাঁচানোর দায়িত্বটা সবার।’

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড অধিনায়ক ক্রিস স্মলিং আমাজনের আগুন নিয়ে বেশ কয়েকটি টুইট করেছেন। প্রথম টুইটে আমাজন বনের আদিবাসী এবং সেখানকার বৈচিত্র্যময় প্রাণিজগৎ নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেন। পরের টুইটে গবাদিপশুর খামার বানানোকে আমাজন পোড়ার অন্যতম কারণ হিসেবে উল্লেখ করেন তিনি। তার টুইটে গত জানুয়ারি থেকে আগস্টের মধ্যে এ বনে সে জন্য ৭৪ হাজারবার আগুন লাগানোর কথাও উল্লেখ আছে। এছাড়া আমাজনের এই পরিণতিতে মর্মাহত হয়েছেন টেনিস মহাতারকা নোভাক জকোভিচ।


ব্রেকিংনিউজ/এএফকে