আশ্বাস দিয়ে রেজিস্ট্রার ফাঁকি দিয়েছেন!

কুবি প্রতিনিধি
১১ নভেম্বর ২০১৯, সোমবার
প্রকাশিত: ০৯:৩৬

আশ্বাস দিয়ে রেজিস্ট্রার ফাঁকি দিয়েছেন!

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) ইনফরমেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন টেকনোলজি (আইসিটি) বিভাগের ক্লাসরুম সংকট নিরসনের আশ্বাসের সময় পার হলেও কোন সমাধান না হওয়ায় বিক্ষোভ করেছে বিভাগটির শিক্ষার্থীরা। 

সোমবার (১১ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত ক্লাসরুম, ল্যাব, শিক্ষক সংকট নিরসনসহ পাঁচ দফা দাবি জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে এ আন্দোলন করে শিক্ষার্থীরা। 

মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) প্রশাসনের সাথে বসে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা হবে এমন আশ্বাসে আন্দোলন স্থগিত করে তারা। 

তবে তাদের এ সমস্যাগুলো সমাধান না হওয়া পর্যন্ত তারা ক্লাস পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে না বলে ঘোষণা দেয় আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা। যেখানে গত ৩১ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের আশ্বাস দিয়েছিলেন কিন্তু সোমবার পর্যন্ত তাদের কোন সমস্যা সমাধান করা হয়নি এমনকি আজ রেজিস্ট্রার নিজেই ছিল অনুপস্থিত।

জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ১৩ বছর পার হয়ে গেলেও ক্লাসরুম, ল্যাব, শিক্ষক সংকটসহ নানা সংকট যেন লেগেই আছে বেশ কয়েকটি বিভাগে। এর মধ্যে আইসিটি বিভাগের বয়স ১০ বছর পার হলেও মাত্র একটি ক্লাসরুম আর সাতজন শিক্ষক নিয়ে চলছে বিভাগটি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে বার বার এ সংকট নিরসনের জন্য আবেদন করলেও আশ্বাস দিয়েই দায়িত্ব শেষ করেছে প্রশাসন। 

সর্বশেষ গত ৩১ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার বরাবর স্মারকলিপি জমা দেয় বিভাগের শিক্ষকরা। ওই দিন নির্মাণাধীন একাডেমিক ভবন- ৪ (প্রকৌশল অনুষদ ভবন) পরিদর্শন করে এবং ইঞ্জিনিয়ার ও ঠিকাদারের সাথে সমন্বয় করে সোমবারের (১১ নভেম্বর) মধ্যে আইসিটি বিভাগের জন্য দুটি ক্লাসরুম, ল্যাব, শিক্ষকদের রুম হস্তান্তরের আশ্বাস দেয়। রেজিস্ট্রার নিজেই দাঁড়িয়ে থেকে ওই ভবনে তাদের তুলে দেবে এমনটাই আশ্বাস দেন। কিন্তু শিক্ষার্থীরা সোমবার ওই ভবনে গিয়ে কাজের তেমন কোন অগ্রগতি দেখতে পায় না, সেখানে ক্লাস করা তো দূরের কথা। এমনকি শিক্ষার্থীরা রেজিস্ট্রারের সাথে দেখা করতে গেলে তিনি আজ আসেনি বলে জানান রেজিস্ট্রার দপ্তর। শিক্ষার্থীদের এমন মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে ধোঁকা দেওয়া এবং তাদের কোন দাবিই বাস্তবায়ন না হওয়ায় প্রশাসনিক ভবনের সামনে বসে প্রধান ফটক লাগিয়ে বিক্ষোভ করে শিক্ষার্থীরা। 

আন্দোলনরত বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী বলেন,‘রেজিস্ট্রার আজকের দিন পর্যন্ত সময় দিয়েও আজ নিজেই অনুপস্থিত। এমনকি উপাচার্য স্যারও আজ নেই ক্যাম্পাসে। যেখানে আজ রেজিস্ট্রার স্যার নিজে উপস্থিত থেকে আমাদের ক্লাসরুম বুঝিয়ে দেওয়ার কথা সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের শীর্ষ দুই অভিভাবকই অনুপস্থিত। আমাদের কি আশ্বাস দিয়েই সন্তুষ্ট রাখতে চায় প্রশাসন?’

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল বলেন,‘আমরা শিক্ষার্থীদের নিয়ে বসেছিলাম। তাদের দাবিগুলো যৌক্তিক। তারা আমাদের আশ্বাসে আগামীকাল পর্যন্ত তাদের আন্দোলন স্থগিত করেছে। মঙ্গলবার বসে দাবিগুলোর একটা সমাধান করার চেষ্টা করব।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের বলেন,‘ঠিকাদাররা ঠিকমতো কাজ শেষ না করায় এ সমস্যা হচ্ছে। ঠিকাদারদের বিষয়ে আমরা বসে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেব। তবে আজকে (সোমবার) রাতের ভেতর অন্তত দুটি রুম হলেও ঠিক করার নির্দেশ দিয়েছি যেন আগামীকাল (মঙ্গলবার) বিভাগটিকে দিতে পারি।’

ব্রেকিংনিউজ/এমএইচ

bnbd-ads
breakingnews.com.bd
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : editor. breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : editor. breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি