জয় বাংলা বলে প্রগতিশীল শিক্ষকের কুশপুত্তলিকা দাহ ইবি ছাত্রলীগের

ইবি প্রতিনিধি
১৯ নভেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার
প্রকাশিত: ১১:৪৯ আপডেট: ১১:৪৯

জয় বাংলা বলে প্রগতিশীল শিক্ষকের কুশপুত্তলিকা দাহ ইবি ছাত্রলীগের

‘জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু, দুর্নীতির বিরুদ্ধে ডাইরেক্ট একশান’ স্লোগান দিয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধ, বাঙালি জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষকদের ফোরাম ‘শাপলা ফোরাম’ এর সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমানের কুশপুত্তলিকা দাহ করছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত ও  বিদ্রোহী দলের নেতারা।

প্রগতিশীল শিক্ষককে শিবির আখ্যা দিয়ে মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) বিকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডায়না চত্বরের পাশে এ কুশপুত্তলিকাদাহ করা হয়।                   

ছাত্রলীগের দলীয় টেন্ট হতে বিক্ষোভ মিছিল বের করে ক্যাম্পাসে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে নেতারা। ড. মাহবুবের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম, দুর্নীতি, ছাত্রলীগের উপরে গুলি চালানোর নির্দেশদাতা, ছাত্র জীবনে ছাত্র শিবির করার অভিযোগ তুলে ছাত্রলীগে বিদ্রোহীদলের নেতা মিজানুর রহমান লালন, তৌকির মাহফুজ মাসুদ, ফয়সাল সিদ্দিকী আরাফাত, আলামিন জোয়াদ্দার এ বিক্ষোভ মিছিল করে।    

ছাত্রলীগ সূত্রে জানা যায়, অধ্যাপক মাহবুবর রহমান দ্বিতীয় মেয়াদে প্রক্টর থাকাকালীন ২০১৭ সালের ১৪ আগস্ট শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শাহিনুর রহমান শাহিন ও সাধারণ সম্পাদক জুয়েল রানা হালিমের সমন্বয়ে ইবির হলসমূহ শিবির মুক্ত করেছেন। বিনা রক্তপাতে হলসমূহ শিবিরমুক্ত করে হলবডি এবং বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণ ফিরেয়ে আনেন। 

ছাত্রলীগের যে নেতাদের সাথে নিয়ে শিবির তাড়িয়েছেন তাদের অনুসারীরাই ড. মাহবুবকে শিবির আখ্যা দিচ্ছে এখন।       

এছাড়া বঙ্গবন্ধু হলে প্রভোস্টের দায়িত্ব নেয়ার পরে ২০০৯ সালে বিভিন্ন মহলের প্রবল বাধার মুখে ইসলামী ছাত্রশিবির লেখা মুছে হল গেট সম্মুখে “বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল এবং বাংলাদেশের ম্যাপ” স্থাপন করেছিলেন বলে জানা যায়।   

শাপলা ফোরাম সূত্রে জানা যায়, অধ্যাপক মাহবুবর রহমান শাপলা ফোরামের দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে প্রগতিশীলতা চর্চা আরো বেগবান হয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে তার তত্ত্বাবধানে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযোদ্ধাদের উৎসর্গ করে জ্যোতির্মান স্মরণিকা প্রকাশিত হয়েছে যা বিভিন্ন মহলে প্রশংসিত হয়েছে।

সাধারণ শিক্ষার্থীরা জানান, বিভিন্ন সময় মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে ড. মাহবুব নেতৃত্ব দেওয়ায় মাদকাসক্তরা প্রায়শই তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তুলে আন্দোলন করে আসছে, তবে তার সত্যতার কাছে তারা বরাবরই পরাজিত হয়েছে।

ড. মাহবুবর রহমান বলেন, সততা ও স্বচ্ছতার ক্ষেত্রে এক চুল নতি স্বীকার করবো না। তাদের অভিযোগের এক বিন্দু সত্যতা প্রমান করতে পারলে বিশ্ববিদ্যালয় ছেড়ে চলে যাব।

শাপলা ফোরামের সভাপতি অধ্যাপক ড. রেজওয়ানুল ইসলাম বলেন, একজন শিক্ষক যদি আওয়ামী লীগ করে বা অন্যদল করে এর জন্য কোনো শিক্ষার্থী তার কুশপুত্তলিকাদাহ করতে পারে না।

শাপলা ফোরামের কোনো সদস্যের বিরুদ্ধে যদি অভিযোগ থাকে তবে সেটা সকলের সাথে মিটিং করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

ব্রেকিংনিউজ/এমজি

breakingnews.com.bd
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : editor. breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : editor. breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি