আরেকটি ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড থেকে বাঁচল চকবাজার!

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
১৫ আগস্ট ২০১৯, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: ০৯:৫৭ আপডেট: ০৯:৫৯

আরেকটি ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড থেকে বাঁচল চকবাজার!

রাজধানীর চকবাজার থানাধীন পোস্তা এলাকায় বুধবার (১৪ আগস্ট) রাতে লাগা ভয়াবহ আগুন ফের দুশ্চিন্তায় ফেলেছে পুরান ঢাকা এলাকাবাসীকে। যদিও অল্প সময়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সফল হয়েছে ফায়ার সার্ভিসকর্মীরা, আর কোনো হতাহতের ঘটনাও ঘটেনি। ফায়ার সার্ভিসের ১৫টি ইউনিট ও স্থানীয়দের প্রায় আড়াই ঘণ্টার নিরলস চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

আগুনের নিয়ন্ত্রনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চকবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ সোহরাব হোসেন।

তিনি বলেন, রাত সাড়ে ১০টার দিকে লাগা এই আগুন কিছুক্ষণ আগেই নিয়ন্ত্রণে এসেছে। এখন ফায়ার সাভির্সের ভেতরে ধোয়া নিরসনের কাজ করছেন, একই সাথে অন্যান্য সব কিছু পর্যবেক্ষন করছেন।

বুধবার  রাত ১০ টা ৪০মিনিটে আগুনের সূত্রপাত হয়। এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন উদ্ধারকর্মীরা।

ফায়ার সার্ভিস নিয়ন্ত্রণকক্ষের কর্তব্যরত কর্মকর্তা এরশাদ জানান, পোস্তায় রাত পৌনে ১১টার দিকে একটি ভবনে অবস্থিত একটি জুতোর কারখানা, একটি পলিথিন কারখানা ও একটি আবাসিক বাড়িতে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ১৫টি ইউনিট সেখানে আগুন নেভানোর কাজ শুরু করে। প্রায় দুই ঘণ্টা কাজ করে আগুন অনেকটা কমিয়ে আনতে সক্ষম হয়।



আগুনের সূত্রপাত বিষয় এখন পর্যন্ত সঠিক কিছু না বলতে পারলেও ট্রান্সফরমার থেকেই আগুন লেগেছে বলে দাবি করছেন স্থানীয়দের কেউ কেউ।

তবে যেখান থেকেই আগুন লাগুক, জুতা ও পলিথিন কারখানায় দাহ্য পদার্থের কারণে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে বলে জানিয়েছেন উদ্ধার কাজে নিয়োজিত ফায়ার সার্ভিসের ডিউটি অফিসার রাসেল শিকদার।

হতাহতের বিষয়ে রাসেল শিকদার বলেন, সম্ভবত ঈদের ছুটি থাকায় ওই ভবনে কেউ অবস্থান করছিল না। তাই এ অগ্নিকাণ্ডে এখন পর্যন্ত কোনো হতাহতের খবর আমরা পাইনি।

একই কথা বলেছেন চকবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ সোহরাব হোসেন। তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত আমরা কোনো ধরনের আহত কিংবা নিহতের কোন খবর পাইনি। যেহেতু এটা একতলা টিনশেড বাড়ি ছিলো এবং ঈদের ছুটি ছিলো তাই এখানে বড় ধরণের কোন ক্ষয়ক্ষতির আশংকাও নেই।

এদিকে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আগুন প্রথমে প্লাস্টিক কারখানায় দেখেছিলেন তারা। পরে ধীরে ধীরে অন্য কারখানায় ছড়িয়ে পড়ে।

ফায়ার সার্ভিসকর্মীদের প্রশংসা করে তারা জানান, ঘটনাস্থলে যাওয়ার পথটি সরু হওয়ার কারণে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা সহজে ভেতরে ঢুকতে পারছিলেন না। তবুও তারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করেছেন। তারা আগুনের লেলিহান শিখার যতটা সম্ভব কাছাকাছি গিয়ে পাইপ টেনে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেছেন।

ব্রেকিংনিউজ/অমৃ

breakingnews.com.bd
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি