আত্মসমর্পণকৃত ৯ জঙ্গিকে র‍্যাবের 'ডি-রেডিক্যালাইজেশন'

তৌহিদুজ্জামান তন্ময়
১৪ জানুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: ০১:১২ আপডেট: ০৮:০২

আত্মসমর্পণকৃত ৯ জঙ্গিকে র‍্যাবের 'ডি-রেডিক্যালাইজেশন'

এবার র‍্যাবের কাছে আত্মসমর্পণ করতে যাচ্ছে নয় জঙ্গি সদস্য। আত্মসমর্পণকৃত নয় জঙ্গিকে 'ডি-রেডিক্যালাইজেশন' অ্যান্ড 'রিহ্যাবিলিটেশন' এর মাধ্যমে সন্ত্রাস ও চরমপন্থার জীবন পরিত্যাগ করে একদল তরুণ-তরুণী শান্তি ও আলোর পথে তথা সমাজের মূলধারায় নিজেদের সমর্পিত করবে। তাদের মধ্যে রয়েছে চিকিৎসক দম্পতি, প্রকৌশলী, শিক্ষার্থীসহ নানা পেশার মানুষ। ডি-রেডিক্যালাইজেশন জঙ্গি গোষ্ঠী মধ্যে- জেএমবি, নব্য জেএমবি, আনসার আল ইসলাম ও আনসারউল্লাহ বাংলা টিমের সদস্যরা রয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) জঙ্গিদের 'ডি-রেডিক্যালাইজেশন' অ্যান্ড 'রিহ্যাবিলিটেশন' উপলক্ষে র‍্যাব সদর দপ্তরে "নব দিগন্তের পথে" শীর্ষক একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে র‍্যাব।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। আরও উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ, র‍্যাবের মহাপরিচালক (ডিজি) অতিরিক্ত আইজিপি চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুনসহ র‍্যাবের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, শিক্ষক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা।

র‍্যাব জানায়, আমরা জঙ্গিদের ধ্বংস করতে পারবো। সামর্থ্য নষ্ট করতে পারবো। কিন্তু তার আদর্শ তো ব্রেনে। সেটা কী করবো? কারো ভেতর যদি ভুল কোনও আইডোলজি থাকে সেটা শুধু যদি বন্দুক দিয়ে মোকাবিলা করা যায় না। এতে আইডোলজি কিন্তু মরবে না। শুধু বন্দুক, অপারেশন এগুলো কাউন্টার টেররিজমের একটা অংশ। সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া নয়। সম্প্রতি দুই ধরনের উগ্রপন্থী লক্ষ করা যাচ্ছে। কিছু উগ্রপন্থী উগ্র মতবাদে বিশ্বাসী হলেও তারা কোনো সন্ত্রাসী কাজে অংশ নিচ্ছে না। আবার কিছু উগ্রপন্থী সন্ত্রাসী কাজে অংশ নিচ্ছে। উগ্রবাদীদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে হলে ডি-রেডিক্যালাইজেশনের বিকল্প নেই। শুধু আইনের আওতায় এনেই জঙ্গিবাদ নির্মূল করা সম্ভব নয়। কারণ, জেল খেটে বের হওয়ার পরও তারা উগ্রপন্থায় জড়িত হতে পারে। জেলের ভেতরও উগ্রপন্থা ছড়িয়ে দিতে পারে। তাই কাউন্সিলিংয়ের মাধ্যমে জঙ্গি বা উগ্রবাদীদের মানসিকতার পরিবর্তন ঘটাতে হবে। নতুন এই উদ্যোগের মাধ্যমে র‍্যাব তাদের (জঙ্গিদের) মানসিকতার পরিবর্তন ঘটাতে পারবে।

কোনো উগ্রবাদী প্রথমেই জঙ্গি হয় না। পর্যায়ক্রমে তারা জঙ্গি হয়। এক্ষেত্রে পাঁচটি ধাপ আছে। প্রথমে উগ্রবাদের প্রতি একাত্মতা প্রকাশ করে এবং দ্বিতীয়ত উগ্রবাদকে সমর্থন করে। এরপর অ্যাকটিভিস্ট হয় (দাওয়াত দেয়া ও চাঁদা আদায়সহ নানা কাজে অংশগ্রহণ)। চতুর্থ ধাপে স্বাভাবিক সবকিছু বিসর্জন দিয়ে এস্ট্রিম (চরম) পর্যায়ে যায়। এরপর বায়াত গ্রহণের পর টেরোরিস্ট হয়ে যায়। এ পর্যায়ে চরমপন্থাকে বাস্তবায়ন করতে নাশকতামূলক কর্মকাণ্ডে যোগ দেয়।

অনেক জঙ্গিদের আমরা ধরি, আইনের আওতায় আনি। সেই সুবাদে আমরা দেখেছি, তাদের মধ্যে একটা হতাশা কাজ করে। তাদের হতাশা আছে। তারা একটা জায়গায় ঢুকে যাওয়ার পরে আর বের হতে পারে না। যদি না তার স্ট্রং পুনর্বাসন ব্যবস্থা থাকে। কেননা তার সঙ্গী যারা আছে তারাই কিন্তু এটা হতে দেবে না। তাদের এই পুনর্বাসনের বিষয়টি আলোচিত হয়না। এটাও কিন্তু সরকারের গুরুত্বপূর্ণ পলিসি। আমরা এই বিষয়টাকে আলোচনায় আনতে চাই। তাদের পুনর্বাসন করে জঙ্গিবাদ বা উগ্রবাদ থেকে ফিরিয়ে আনতে চায়।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে রাজধানীর গুলশানের হলি আর্টিজানে নৃশংস জঙ্গি হামলার ঘটনার পর থেকে এখন পর্যন্ত র‌্যাবের কাছে সাত জঙ্গি আত্মসমর্পণ করেছে। মূলত সরকারের পুনর্বাসন প্রকল্পের আওতায় র‌্যাব তাদের কাউন্সেলিংয়ের মাধ্যমে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনে। পাইলট প্রকল্প হিসেবে এখানে সফলতা পাওয়ার পর এটি স্থায়ী রূপ দিতে কাজ করছে র‌্যাব। সমাজে পুনর্বাসিত করার জন্য তাদের ডি-রেডিক্যালাইজেশন করবে।

ব্রেকিংনিউজ/টিটি/নিহে

breakingnews.com.bd
প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি