শিরোনাম:

কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ, মামলা নেয়নি পুলিশ

আতোয়ার রহমান, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি
১৪ জুন ২০১৮, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: 6:49
কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ, মামলা নেয়নি পুলিশ

লক্ষ্মীপুরে কিশোরীকে মুখ বেধে তুলে নিয়ে গনধর্ষণের অভিযোগে ধর্ষিতার পরিবার মামলার জন্য থানায় গেলে মামলা নেয়নি পুলিশ। ঘটনার পর থেকে কিশোরীকে থানা পুলিশ ও হাসপাতালে ভর্তি হতে না দেয়ার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয়  প্রভাবশালী মহলের বিরুদ্ধে।

গণধর্ষণের ঘটনায় গ্রাম্য মিমাংসার অপেক্ষার পর মামলা করতে গেলে বুধবার (১৩  জুন) বিকালে দীর্ঘ সময় তাদেরকে থানায় রেখেও মামলা নেয়নি চন্দ্রগঞ্জ থানা পুলিশ। ব্রেকিংনিউজ প্রতিবেদকের কাছে এমনই অভিযোগ করেছে ধর্ষেণের স্বীকার কিশোরী ও তার বাবা।

পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার (১২ জুন) রাতে ওই মেয়েটি সময় মত চিকিৎসকের নিকট গেলেও তখন তাকে যে মুখ বেধে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ করেছে, সে ব্যাপারে চিকিৎসক ও থানা পুলিশকে ওই দিন কিছুই বলেনি। ঘটনাটি সঠিক নয়, পূর্ব বিরোধের জের ধরে প্রতিশোধ নিতে সম্পূর্ণ নাটক সাজানো হয়।

এলাকাবাসী ও মেয়েটির পরিবার জানায়, মঙ্গলবার রাতে তাকে ঘুমন্ত অবস্থায় ঘর থেকে মুখে কাপড় চেপে তুলে নিয়ে পালাক্রমে গণধর্ষণ করে কয়েক বখাটে। তাদের কথাবার্তায় দু’জনকে চিনতে পারে বলে জানায় কিশোরী। বিষয়টি স্থানীয় মাতব্বর মিমাংসা করবে বলে কাউকে জানাতে নিষেধ করায় চিকিৎসা নিতে এসেও সে চিকিৎসক ও পুলিশকে জানায়নি।

এদিকে পুলিশ সব ঘটনা শুনেও কিশোরীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পূর্ণ না করাসহ তাদের দেয়া মামলা না নেয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে তারা। কিশোরীর পরিবারের অভিযোগ, পুলিশ প্রভাবশালীদের কথায় তাদের মামলা নেয়নি। অপরদিকে এ ঘটনায় বখাটেদের গ্রেফতারসহ বিচারের দাবি জানিয়েছে এলাকাবাসী।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহিম জানান, এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের নিকট কিশোরী গণধর্ষণের বিষয়টি তিনি শুনেছেন। তবে তার নিকট সুনির্দিষ্টভাবে কেউ অভিযোগ করেনি।

চন্দ্রগঞ্জ থানার ওসি তদন্ত মো: জাফর আহাম্মদ ব্রেকিংনিউজকে জানান, তার নিকট মনে হয়েছে কিশোরীকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণের ঘটনাটি সঠিক নয়,তাই তিনি মামলা নেননি। তিনি আরো জানান, এলাকার ইউপি সদস্যসহ গন্যমান্যদের সাথে আলাপ করে জেনেছেন, পূর্ব বিরোধের জের ধরে প্রতিশোধ নিতে কিশোরী সম্পূর্ণ নাটক সাজিয়ে মামলা করতে এসেছে। এ জন্য ডাক্তারি পরীক্ষারও প্রয়োজন মনে করেননি তিনি। 

ব্রেকিংনিউজ/এসএএফ

Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2