শিরোনাম:

প্রযুক্তির যুগে প্রশ্নফাঁস সব জায়গায়ই হচ্ছে: শিক্ষামন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক
২৮ জুন ২০১৮, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: 4:39
প্রযুক্তির যুগে প্রশ্নফাঁস সব জায়গায়ই হচ্ছে: শিক্ষামন্ত্রী

ইন্টারনেটের এই যুগে বিশ্বের সব জায়গায়ই প্রশ্নফাঁস হচ্ছে- এমন দাবি করে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, ‘ভারতে কেন্দ্রীয়ভাবে এবং রাজ্যভিত্তিক কিছু পরীক্ষা হয়। এবার রাজ্যের কিছু পরীক্ষার প্রশ্নফাঁস হয়েছে। সিঙ্গাপুরেও প্রশ্নফাঁস হয়েছে। ইংল্যান্ডেও প্রশ্নফাঁস হয়েছে। ইন্টারনেটের যুগে এগুলো সব জায়গায়ই হচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘এসএসসির প্রশ্নফাঁস নিয়ে অনেক কথা হয়েছে। এমনকি মিডিয়াতেও ব্যাপক প্রচার হয়েছে। এসব অভিযোগ আমলে নিয়ে পাঁচটি মন্ত্রণালয় ও সব ধরনের নিরাপত্তা সংস্থার মাধ্যমে তদন্ত কমিটি করেছিলাম। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে বেরিয়ে এসেছে মাত্র কয়েকটি প্রশ্ন আংশিক, তাও পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট পর ফাঁস হয়েছে। সেটি ৩০ নম্বরের এমসিকিউ ছিল। আমরা গোপন রাখিনি, তদন্ত করে প্রকাশ করেছি।

বৃহস্পতিবার (২৮ জুন) জাতীয় সংসদ অধিবেশনে ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের বাজেটের ওপর ছাঁটাই প্রস্তাবের ওপর বিরোধী দলীয় সংসদ সদস্যের বক্তব্যের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। 

অধিবেশনে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগে বরাদ্দের বিরোধিতা করে জাতীয় পার্টির ৯ সদস্য ছাঁটাই প্রস্তাব দেন। এরা হলেন-ফখরুল ইমাম, নূরুল ইসলাম ওমর, সেলিম উদ্দিন, মোহাম্মদ আব্দুল মুনিম চৌধুরী, রুস্তম আলী ফরাজী, রওশন আরা মান্নান, নুরুল ইসলাম মিলন, পীর ফজলুর রহমান।

বাজেটে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে ২০১৯ সালের ৩০ জুলাই পর্যন্ত ১৮ হাজার ১৬৬ কোটি ৩১ লাখ টাকা বরাদ্দ রাখা হয়। ফখরুল ইমাম এ বরাদ্দের বিরোধিতা করে বলেন, শিক্ষাখাতে বরাদ্দ বাড়ানো দরকার। কিন্তু এ মন্ত্রণালয়ে জিপিএ-৫ কেনা-বেচার ঘটনা ঘটে। এগুলো খারাপ কাজ। এ বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয় কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। যতক্ষণ এটা ঠিক না করবে, ততক্ষণ টাকা ছাড় করা ঠিক হবে না।

ঘুষ নিয়ে নিজের বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘আমাকে নিয়ে একটা পত্রিকা মিথ্যা তথ্য প্রচার করেছে। আমি নাকি বলেছি, দুর্নীতি সহনীয় পর্যায়ে করার জন্য। আমি উদাহরণ দিয়ে বলেছিলাম। আমার বক্তব্যটি গণমাধ্যমে বিকৃত করে প্রচার করা হয়েছিল।’

ব্রেকিংনিউজ/ এসএ 

Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2