শিরোনাম:

জাবি ছাত্রলীগের ২ নেতার বিরুদ্ধে চাঁদা দাবির অভিযোগ

জাবি করেসপন্ডেন্ট
১০ জুলাই ২০১৮, মঙ্গলবার
প্রকাশিত: 7:09 আপডেট: 7:22
জাবি ছাত্রলীগের ২ নেতার বিরুদ্ধে চাঁদা দাবির অভিযোগ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) শাখা ছাত্রলীগের দুই নেতার বিরুদ্ধে এক বেকারির মালিকের কাছে চাঁদা দাবি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। চাঁদা না দেয়া হলে ওই বেকারির পণ্যবাহী গাড়ি ক্যাম্পাসে ঢুকলে পুড়িয়ে দেয়ারও হুমকি দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বেকারির মালিক মোহাম্মদ সবুজ। 

মঙ্গলবার (১০ জুলাই) ঢাকার সাভারের ‘মঙ্গল বেকারি’র মালিক সবুজ ব্রেকিংনিউজের সাথে আলাপকালে এসব অভিযোগ করেন।

অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতারা হলেন, শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ও পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী বায়জিদ খান এবং উপ-দফতর সম্পাদক ও নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী মাজেদুল হক রাজন। তারা দুজনই ৪১তম ব্যাচের (স্নাতকোত্তর) শিক্ষার্থী এবং বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের আবাসিক ছাত্র। 

বেকারি’র মালিক ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘গত বৃহস্পতিবার রবীন্দ্রনাথ হলে পণ্য পৌঁছে দিতে আসেন মঙ্গল বেকারির প্রতিনিধি রূপ মিয়া। এসময় রূপ মিয়াকে আটকে বেকারির পণ্য স্বাস্থ্যসম্মত নয় বলে অভিযোগ করেন বায়জিদ ও মাজেদুল। এই বেকারির পণ্য আর ক্যাম্পাসে আনা যাবে না বলে জানান ছাত্রলীগের ওই দুজন নেতা। সেদিন থেকে পণ্য পরিবহন বন্ধ রাখে মঙ্গল বেকারি।’ 

পরবর্তীতে গত সোমবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ও মানবিকী অনুষদ ভবনে বায়জিদ ও মাজেদুল বেকারি মালিকের সাথে দেখা করেন। এ সময় তারা ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা না দেয়া পর্যন্ত বেকারির পণ্যবাহী গাড়ি ক্যাম্পাসে ঢোকানো যাবেনা বলে হুমকি দেন তাঁরা। 

অভিযোগের ব্যাপারে শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি বায়জিদ খান ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘ওই বেকারির পণ্যের ট্রেডমার্ক ও মেয়াদ উল্লেখ ছিল না। তাদের পণ্য খেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের দুজন ছাত্র অসুস্থ হয়ে পড়ে। তাই আমরা ওদের পণ্যের মান উন্নয়নের কথা বলি এবং অসুস্থ ছাত্রদের চিকিৎসার ভার নিতে বলি। এর বেশি কিছু না।’ 

মাজেদুল হক বলেন, ‘অসুস্থ্য ছাত্ররা হাসপাতালে ভর্তি ছিলো। আমরা বেকারি মালিকদেরকে হাসপাতালে এসে ছাত্রদের সাথে দেখা করে যেতে বলেছি। তারা তা করেনি। পরে ওরা নিজেরাই জরিমানা দিতে চেয়েছিলো। আমরা না করে দিয়েছি।’ 

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর সিকদার মো. জুলকারনাইন সাংবাদিকদের বলেন, ‘এ ধরণের কোন অভিযোগ আমরা পাইনি। এটা ফৌজদারী আইনের লঙ্ঘন বলে ভুক্তভোগী থানায় মামলা করতে পারেন। তবে আমরা অভিযোগ পেলে বিষয়টি খতিয়ে দেখবো।’

ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি/এমএ/এমআর.

Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2