শিরোনাম:

কেমন আছে উদ্ধার হওয়া থাই কিশোররা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
১১ জুলাই ২০১৮, বুধবার
প্রকাশিত: 5:30
কেমন আছে উদ্ধার হওয়া থাই কিশোররা

থাইল্যান্ডের থাম লুয়াং গুহায় দুই সপ্তাহেরও বেশি ধরে আটকে পড়া ১৩ জনকে একে একে উদ্ধার করেছেন ডুবুরিরা। মঙ্গলবার কিশোরদের উদ্ধার শেষে ৯০ জন ডুবুরির প্রত্যেকে বেরিয়ে এসেছেন। এতে স্বস্তি প্রকাশ করেছেন বিশ্বের অনেক মানুষ।

উদ্ধারের পরপরই তাদের স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। গত দু’দিনে গুহা থেকে উদ্ধার হওয়া আট জনের মধ্যে দু’জনের নিউমোনিয়া ধরা পড়েছে। তবে হাসপাতালের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ভয়ের কিছু নেই। সকলেই চিকিৎসায় সাড়া দিয়েছে। 

একজন চিকিৎসক বলেন, ‘আমরা ভেবেছিলাম সকলেরই নিউমোনিয়া ধরা পড়বে। কিন্তু বেশির ভাগেরই তেমন কিছু ধরা পড়েনি।’

সামান্য সর্দিকাশি, হাল্কা জ্বর, হাতে-পায়ে চোট বাদ দিয়ে তেমন কিছু নেই বলে ওই চিকিৎসক জানান।

হাসপাতালে কোয়ারান্টাইন করে রাখা হয়েছে বাচ্চাদের। গতকাল রাতে কাচের জানলার বাইরে থেকে স্বজনদের দেখতে দেওয়া হয়েছিল। সংক্রমণের ভয়ে কাউকে সামনে আসতে দেওয়া হয়নি।

শরীরে কোনও রকম সংক্রমণ রয়েছে কি না, তা পরীক্ষা করা হয়ে গেলে পরিবারের সঙ্গে সামনাসামনি দেখা করতে দেওয়া হবে। সে ক্ষেত্রেও অবশ্য তাদের হাসপাতালের বিশেষ পোশাক, মুখোশ পরে ঢুকতে হবে।

তবে উদ্ধারকারী দলকে ছেলেরা জানিয়েছে, গুহায় কোনও বাদুড় জাতীয় প্রাণী ছিল না। ফলে রোগ সংক্রমণের ভয় পাচ্ছেন না চিকিৎসকরা। তবু সাত দিন হাসপাতালেই রাখা হবে বাচ্চাদের।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ‘সকলেরই বয়স খুব কম। তাই সহজে পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নিতে পেরেছে। সকলেই খুব স্বাভাবিক ভাবে কথা বলছে। গুহা থেকে বেরিয়ে আসতে পেরে ওরা খুশি।’

চিকিৎসকেরাও জানাচ্ছেন, এত দিন গুহার অন্ধকারে, জলের মধ্যে ঠান্ডায় ছিল ওরা। মা-বাবাকে দেখতে পায়নি। কিন্তু সকলকে চমকে দিয়ে ওরা অদ্ভুত স্বতঃস্ফূর্ত রয়েছে।

তারা বলেন, ‘বারবার নানা ধরনের খাবার খেতে চাইছে। কিন্তু এত দিনের ধকল, তাই সহজপাচ্য খাবার দেওয়া হচ্ছে। নিজেরা বসে খেতে পারছে। আশঙ্কা করার মতো কিছু নেই।’

ব্রেকিংনিউজ/আরএ

Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2