পুঁজি নেই, পূরণ হচ্ছে না শর্ত, কাঁকড়া-কুঁচিয়া শিল্পে বিপর্যয়

তাহজীবুল আনাম,কক্সবাজার
১৪ অক্টোবর ২০২০, বুধবার
প্রকাশিত: ০৮:২৬ আপডেট: ০৮:৩৯

পুঁজি নেই, পূরণ হচ্ছে না শর্ত, কাঁকড়া-কুঁচিয়া শিল্পে বিপর্যয়

পুঁজি সংকটের কারণে চায়নার দেয়া শর্ত পূরণ করতে না পারায় বন্ধ রয়েছে কাঁকড়া ও কুঁচিয়া রফতানি। ফলে চরম বিপর্যয় নেমে এসেছে এ শিল্পে। শুধু তাই নয়, এ শিল্পে নিয়োজিত প্রায় ৭ লাখেরও বেশি শ্রমিক বেকার হওয়ার শঙ্কায় রয়েছেন। একইসঙ্গে এ শিল্পে নিয়োজিত শ্রমিকরা চরম দুর্ভোগে দিন পার করছেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

জানা যায়, চীনের আমদানিকারকরা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও মৎস অধিদফতরকে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন ফুড এন্ড এগ্রিকালচার অর্গানাইজেশন প্রক্রিয়াজাতকরণ এলাকাকে আরও পরিচ্ছন্ন ও স্বাস্থ্যসম্মত করতে হবে। এছাড়া পরিবেশ বান্ধব কোল্ড স্টেরেজ থাকতে হবে। পাশাপাশ জীবন্ত কাঁকড়া ও কুঁচিয়া শীততাপ নিয়ন্ত্রিত এলাকায় সংরক্ষণ করাসহ বেশ কিছু শর্ত বেঁধে দেয়। অন্যথায় কাঁকড়া-কুঁচিয়া বাংলাদেশ থেকে আমদানি করবে না তারা। ফলে কক্সবাজার, নোয়াখালী, বরিশাল, খুলনা ও চট্টগ্রাম অঞ্চলের ৭ লাখেরও বেশি লোক অর্থ সংকটে দিন পার করছেন।

কাঁকড়া ও কুঁচিয়া সরবরাহকারী সমিতির কক্সবাজার শাখার সভাপতি আবু তৈয়ব জানান, মোট উৎপাদনের ৮০ ভাগ কাঁকড়া-কুঁচিয়া চাহিদা রয়েছে শুধুমাত্র চীনের বাজারে। তাই চীনের আমদানিকারকেরা বিভিন্ন শর্ত দিয়েছেন। এসব শর্ত না মানলে বাংলাদেশ থেকে কাঁকড়া-কুঁচিয়া আমদানি করবে না বলে জানিয়েছেন তারা।


রফতানিকারক সমিতির সভাপতি গাজী আবুল কাশেম বলেন, কাঁকড়া ও কুঁচিয়া ব্যবসায়ীরা মধ্যবিত্ত শ্রেণীর লোক। আর কোল্ড স্টোর তৈরি করতে ২৫ -৩০ কোটি টাকার প্রয়োজন। কিন্তু পুঁজি না থাকায় তাদের শর্ত পূরণ করা হচ্ছে না। ফলে বন্ধ আছে কাঁকড়া ও কুঁচিয়া রফতানি।

এদিকে, চায়নার শর্ত পূরণ করে রফতানি করতে না পারলেও সীমিত পরিসরে মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর ও হংকংয়ে বিনাশর্তে কম মূল্যে রফতানি করা হচ্ছে। আগে প্রতি কেজি কাঁকড়া ও কুঁচিয়া ২ হাজার থেকে আড়াই হাজার টাকায় মাঠ পর্যায়ে বিক্রি হলেও দাম কমে এখন ৪০০ থেকে  ৫০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে সেসব দেশগুলোতে। যার ফলে লোকসান গুনতে হচ্ছে ব্যবসায়ীদের।

এ শিল্পে ধস নামার ফলে মাঠ পর্যায়ের অনেক ব্যবসায়ী ও উৎপাদনকারী এ পেশা ছেড়ে দিতে বাধ্য হচ্ছেন বলে জানিয়েছেন মহেশখালীর কাঁকড়া ও কুঁচিয়া  সরবরাহকারী দিলীপ কুমার সুশীল।

কক্সবাজারের চকরিয়ার কাঁকড়া ব্যবসায়ী কেন্দ্রীয় রফতানিকারক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক পটল কুমার জানান, একদিকে  কোভিড-১৯। অপরদিকে চীনে কাঁকড়া ও কুঁচিয়া রফতানি বন্ধ থাকায় উৎপাদক, পরিবহন শ্রমিক বিপণনকারীরা এখন পুঁজি হারিয়ে পথে বসার উপক্রম হয়েছে।

রফতানিকারক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাজী আজাদ জানিয়েছেন পর্যায়ক্রমে সব শর্ত মানতে আমরা প্রস্তুত, তবে কাঁকড়া-কুঁচিয়া রপ্তানি বন্ধ করে নয়। এ ব্যাপারে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে কূটনৈতিক তৎপরতা চালিয়ে চায়নার বাজার অবমুক্ত করার দাবি জানিয়েছেন তিনি।

চলতি বছরের জুলাই মাসে কক্সবাজারের চকরিয়ায় কাঁকড়া-কুঁচিয়া উৎপাদনকারী পরিবহন শ্রমিক ও বিপণনকারীরা চীনের বাজার খুলে দেয়ার দাবিতে মানববন্ধন স্মারকলিপি নিয়ে শত শত ক্ষতিগ্রস্ত লোক রাস্তায় নামেন। এ সমস্যা সমাধানে সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপও কামনা করেন তারা।

রফতানিকারক সমিতির নেতৃবৃন্দ বলেন, এ খাত থেকে প্রতিবছর এক হাজার থেকে বারো’শো কোটি টাকার রেমিটেন্স আসে দেশে। এ শিল্প ধ্বংস হয়ে গেলে দেশের ৭ লাখ লোক বেকার হয়ে পড়বেন বলেও তারা প্রধানমন্ত্রীকে দেয়া স্মারকলিপিতে উল্লেখ করেছেন।

কক্সবাজার জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এসএম খালেকুজ্জামান বলেন, কাকড়া-কুঁচিয়া উৎপাদন প্রক্রিয়ায় ও বিপণন পদ্ধতিতে আধুনিকায়ন করার প্রক্রিয়া চলছে। সংরক্ষণ ও পরিবহন ব্যবস্থায় জীবাণুমুক্ত এবং স্বাস্থ্যসম্মত করার জন্য এই শিল্পে সম্পৃক্তদের বিশেষ প্রশিক্ষণ দেয়ার কাজও এগিয়ে চলছে। আশা করা হচ্ছে, আমদানিকারকদের দেয়া শর্ত সমূহ পূরণ হবে। এবং আবার সুদিন ফিরে আসবে এ শিল্পে।

ব্রেকিংনিউজ/এসআই

breakingnews.com.bd
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি