‘বিনোদিনী রায়’ গান-বিতর্কে যা বললেন চঞ্চল

বিনোদন ডেস্ক
২৪ অক্টোবর ২০২০, শনিবার
প্রকাশিত: ০২:৩০

‘বিনোদিনী রায়’ গান-বিতর্কে  যা বললেন চঞ্চল

‘বিনোদিনী রায়’ গানটি নিয়ে আলোচনা সমালোচনা যে শেষ হচ্ছে না। শুরুটা হয় প্রশংসা দিয়ে। এরপরই বিতর্ক শুরু। গানটা পার্থ বড়ুয়ার সংগীতায়োজনে নতুন করে কণ্ঠ দেন চঞ্চল চৌধুরী ও মেহের আফরোজ শাওন। সাথে সাথে ভাইরাল নেট দুনিয়ায়। শ্রোতাদের প্রশংসায় সিক্ত হন সংশ্লিষ্টরা। এরপরই বিতর্ক শুরু। 

সরলপুর নামের একটি ব্যান্ড এই গানের কপিরাইট তাদের দাবি করেন। আপত্তির মুখে ইউটিউব থেকে সরিয়ে ফেলতে হয়েছে চঞ্চল ও শাওনের গাওয়া গানটি। সরলপুর ব্যান্ড সদস্যদের এমন আচরণে কষ্ট পেয়েছেন চঞ্চল চৌধুরী।

চঞ্চল জানালেন, গান নিয়ে এই ধরনের জটিলতা একেবারেই কাম্য নয়। আমাদের লোকগানের পদরচয়িতা কে বা কারা, তা জানা যায় না। লোকমুখে শুনতে শুনতে একটা পর্যায়ে এসেছে। ঐতিহ্যবাহী পদগুলো আমাদের সংস্কৃতির বিশাল শক্তি। এটাকে আমাদের রক্ষা করতে হবে। চুরি–ডাকাতি করে নিজের দখলে নেওয়া, আমি করেছি কিংবা লিখেছি, এমন ভাব দেখানো মোটেও উচিত না। চাইলেই কোনো মানুষ এই ধরনের পদ লিখতে পারে না! এই ধরনের পদ, একটু কারেকশন করে আমার বলা খুবই অন্যায়। এ রকম অসংখ্য গান, কবিতা ছোটবেলায় প্রচুর শুনেছি। সবার মুখে মুখে ছড়িয়েও আছে। কেউ যদি ব্যক্তিগত ফায়দার জন্য নিজের বলে চালিয়ে দেয়, তাহলে সেটা খুবই দুঃখজনক।

কপিরাইট নিবন্ধন কর্মকর্তা জাফর রাজা চৌধুরী জানান, সরলপুর ব্যান্ড ‘যুবতী রাধে’ গানটি নিজেদের লেখা, সুর করা ও তৈরি হিসেবে ২০১৮ সালের ৪ জুন কপিরাইট রেজিস্ট্রেশন নেয়। কয়েক মাস পর ২০১৯ সালের ১০ এপ্রিল সুমি মির্জা নামের একজন শিল্পী আপত্তি তুলে বলেন, গানটি ‘মৈমনসিংহ গীতিকা’–এর ‘যুবতী রাধে’ গানের নকল।

এরপর কয়েকটি শুনানি হয়। তখন সরলপুর ব্যান্ড ২০১২ সালের একটি রেফারেন্স দেয়, যেখানে দেখা যায়, চ্যানেল নাইনের একটি অনুষ্ঠানে তারা গানটি গাওয়ার সময় বলেছে, এই গানের ৩০ পারসেন্ট তাদের সংগ্রহ আর ৭০ পারসেন্ট তাদের রিমেক করা।

কপিরাইটের বিষয়টি তুললে চঞ্চল চৌধুরী বললেন, ‘আইনগতভাবে “যুবতী রাধে” গানের এখন কপিরাইট যেহেতু সরলপুর ব্যান্ডের, এ জন্য তাদের কিন্তু নিজেদের ইউটিউবে আপলোড করার সময় কপিরাইটের বিষয়টি উল্লেখ করা উচিত ছিল। কিন্তু তারা যা করেছে, এটা আশা করিনি। আমরা কেউ কিন্তু জানি না, এই গানের কপিরাইট অন্য কারও। জানি না বিধায় তাদের কৃতজ্ঞতা দেওয়া হয়নি। আর জানবই বা কী করে, এই গান তো সরলপুর ব্যান্ড নিজেদের ইউটিউবের ক্রেডিট লাইনে কথা ও সুর নিয়ে কিছুই বলেনি।’ 

চঞ্চল বললেন, ‘বেশি কষ্ট পেয়েছি, আমরা সবাই সাংস্কৃতিক অঙ্গনে কাজ করছি। তারাও শিল্পী, গান গায়; আমরাও টুকটাক গান করি। আলোচনার মাধ্যমে তাদের ক্রেডিট দেওয়ার প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছে, কিন্তু তারা অসম্মতি জানিয়েছে। এখন তো অবস্থা যা দেখছি, এই ক্রেডিট তাদের মোটেও প্রাপ্তি না। এটা তারা কপিরাইট করিয়েছে, কেমনে করেছে সেটা পরের কথা। ইউটিউব থেকে মুছে না দিয়ে আলোচনায় বসতে পারত।’

চঞ্চল আরও বলেন, ‘একটি টেলিভিশন অনুষ্ঠানে সরলপুর ব্যান্ডের সদস্যরা নিজে মুখে স্বীকার করছে, “যুবতী রাধে” গানের ৩০ ভাগ সংগৃহীত আর সংগৃহীত হলে কপিরাইট হয় কীভাবে? তারা এ–ও পরিষ্কার করে বলুক, কোন অংশ সংগৃহীত, কোন অংশ তাদের লেখা। কিন্তু আমার মনে হয়েছে, ৭০ ভাগই সংগৃহীত, বাকি ৩০ পার্সেন্ট হয়তো তাদের লেখা। নিজেদের গাওয়ার জন্য গানটি এদিক–সেদিক করছে। তার মানে এই নয় যে মালিকানা তাদের।’

ব্রেকিংনিউজ/এএফকে 

breakingnews.com.bd
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি