সুবলং ঝর্ণায় গিয়ে হতাশ পর্যটকরা

রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি
১১ ফেব্রুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার
প্রকাশিত: ০৩:৪৪

সুবলং ঝর্ণায় গিয়ে হতাশ পর্যটকরা

রাঙ্গামাটির সুবলং ঝর্ণা দেখতে গিয়ে হতাশ হয়ে ফিরছেন দেশি-বিদেশি পর্যটকরা। যার কারণে প্রচুর পরিমাণে রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার। তবে ঝর্ণাটি সারা বছর সচল করার বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের আশ্বাস বরকল উপজেলা প্রশাসনের।

রাঙ্গামাটির বরকল উপজেলার সুবলং ঝর্ণাটি দেশি-বিদেশি পর্যটকদের কাছে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেছে ইতিমধ্যে। শহর থেকে পানি পথে মাত্র ২৫কিলোমিটার দূরে এই ঝর্ণার অবস্থান হওয়ায় রাঙ্গামাটিতে ঘুরতে আসা পর্যটকরা সুবলং ঝর্ণা না দেখে যায় না বললেই চলে। বর্ষা মৌসুমে ঝর্ণাটি জলধারা প্রায় তিনশত ফুট উঁচু থেকে নিচে আছড়ে পড়ে। এই অপরুপ দৃশ্য দেখতে পর্যটকরা অনেক ক্ষেত্রে রাঙ্গামাটি আসার আগে থেকেই রাঙ্গামাটি এলে সুবলং ঝর্ণায় যাওয়ার চিন্তুা করে আসেন।

বর্ষা মৌসুমে ঝর্ণাটি তার রুপ ফিরে পেলেও, শীত মৌসুমে তার ভরা যৌবনে ভাটা থাকে, সে ভাটার সময়ের পরিমাণ দিন দিন বাড়ছে। 
কিন্তু শীত মৌসুমেই রাঙ্গামাটিতে পর্যটকের ঢল নামে। সে পর্যটকরা ঝর্ণা দর্শনের আশা নিয়ে রাঙ্গামাটিতে এলেও সে ঝর্ণার দর্শন না করেই ফিরে যেতে হচ্ছে তাদের। তারপরও যারা ঝর্ণার বর্তমান অবস্থা দেখতে যাচ্ছেন তারাও ঝর্ণায় যাওয়ার ঘাটে না গিয়ে হতাশ হয়ে বোর্ট বা লঞ্চ ঘুরিয়ে সম্মুখ ভাগ থেকে চলে আসছেন। যার কারণে ঝর্ণায় যেতে ঘাটে যে জনপ্রতি ফি নেয়া হয়, সে রাজস্ব পাচ্ছে না সরকার।

কুমিল্লা থেকে রাঙ্গামাটি ঘুরতে আসা পর্যটক স্বাধীন চৌধুরী বলেন, আশা করে এসে ছিলাম লেকে ঘুরবো আর ঝর্ণায় ভিজবো কিন্ত লেকে ঘুরা হলেও ঝর্ণায় ভিজা হলো না।

চট্টগ্রাম ইন্ডিপেন্ডেন ইউনিভারসিটির শিক্ষার্থীরা জানান, আমরা গিয়েছিলাম সুবলং ঝর্ণা দেখতে কিন্তু ঝর্ণায় পানি না থাকায় ঘাটের সম্মুখ ভাগ থেকে লঞ্চ ঘুরিয়ে চলে এসেছি। 

বরকল উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস. এম. মনজুরুল হক জানান, সারা বছর এই ঝর্ণার রুপ দর্শনে কম বেশি পর্যটকের আনাগোনা থাকে এই এলাকায়। তবে শীত মৌসুমে পর্যটকের আনাগোনা বেশি হয়। কিন্তু সেই সময় ঝর্ণায় পানি থাকে না। যার কারণে আমরা প্রচুর পরিমাণে রাজস্ব হারাচ্ছি। 

তবে কিভাবে ঝর্ণাটি সারা বছর সচল রাখা যায় সে বিষয়ে আমরাও পরিকল্পনা করছি। আমরা ঝর্ণাটি পরিদর্শনে গিয়ে সারাবছর সেটির জলধারা সচল রাখার বিষয়ে চূড়ান্ত পদক্ষেপে যাব। ঝর্ণাটি সারাবছর সচল রাখা সম্ভব হলে ঝর্ণাটি থেকে রাজস্ব আয় বাড়বে।

ব্রেকিংনিউজ/এমএইচ

breakingnews.com.bd
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি