বিজেপি’র বর্ষীয়াণ নেতার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ

ভারত-পাকিস্তান ডেস্ক
১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার
প্রকাশিত: ০১:৩৩

breakingnews

ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপি’র বর্ষীয়াণ নেতা স্বামী চিন্ময়ানন্দের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও তা ভিডিও ধারণের অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ করেছেন উত্তরপ্রদেশের সাহারানপুরের এক কলেজ ছাত্রী। স্বামী চিন্ময়ানন্দ বিজেপি’র প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী।

ধর্ষণের শিকার ওই কলেজ ছাত্রী পুলিশ ও ম্যাজিস্ট্রেটকে জানিয়েছেন, টানা প্রায় এক বছর ধরে তাকে যৌন নির্যাতন করেছেন স্বামী চিন্ময়ানন্দ।

ভারতীয় গণমাধ্যমে জানানো হয়েছে, সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত স্পেশাল ইনভেস্টিগেটিং টিম ১৫ ঘণ্টা ধরে জেরা করেছে ওই ছাত্রীকে।

ভারতীয় পুলিশ বলছে, ওই ছাত্রী তার ১২ পৃষ্ঠার জবানবন্দিতে পুলিশকে জানিয়েছেন, গত বছর জুন মাসে তার সঙ্গে পরিচয় হয়েছিল ৭৩ বছর বয়সী চিন্ময়ানন্দের। সাহারানপুরের কলেজে ভর্তির আর্জি নিয়ে তিনি চিন্ময়ানন্দের সঙ্গে দেখা করেছিলেন। যেদিন তিনি চিন্ময়ানন্দের সঙ্গে দেখা করেন, সে দিন 'স্বামীজি' তাঁর কাছ থেকে ফোন নম্বর চেয়ে নেন। তারপর কয়েকেদিনের মধ্যে কলেজে তার ভর্তির ব্যবস্থা করে দেন। যেহেতু তাদের পারিবারিক অবস্থা ভাল নয়, তাই কলেজের লাইব্রেরিতে মাসিক পাচ হাজার টাকার বেতনের একটা কাজের ব্যবস্থাও করে দিয়েছিলেন চিন্ময়ানন্দ।

ভারতের উত্তর প্রদেশের রাজনীতিতে বহুদিনের পোড় খাওয়া নেতা হলেন চিন্ময়ানন্দ। বাজপেয়ী জমানায় তিনি কেন্দ্রীয় সরকারে মন্ত্রীও ছিলেন। উত্তরপ্রদেশে তার বেশ কিছু আশ্রম ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

পুলিশের কাছে ছাত্রীটি অভিযোগ করেছেন, গত অক্টোবর মাসে তাকে ডেকে চিন্ময়ানন্দ বলেন, বাড়ি থেকে কেন যাতায়াত করবে? হোস্টেলে এসে থাকো। তারপর তিনি কলেজ হোস্টেলে চলে আসেন। কিন্তু এর কয়েক দিন পর আশ্রমে ডেকে তাকে একটি ভিডিও দেখান চিন্ময়ানন্দ। তা হলো, হোস্টেলের বাথরুমে ওই ছাত্রীর স্নানের ভিডিও। ছাত্রীটির অভিযোগ, এরপর চিন্ময়ানন্দ তাকে বলেন তার সঙ্গে সহবাস করতে, তা না করলে ওই ভিডিও ভাইরাল করে দেওয়ার হুমকি দেন। শুধু তাই নয়, তাকে ধর্ষণ করার সময় তা ভিডিও রেকর্ডিং করা হয় বলেও অভিযোগ করেছেন ছাত্রীটি। 

পুলিশের কাছে তিনি জানিয়েছেন, এসব গত জুলাই মাস পর্যন্ত চলতে থাকে। এক টানা এই যৌন অত্যাচারে বিধ্বস্ত হয়ে তিনি আগস্ট মাসে একটি ফেসবুক ভিডিও পোস্ট করে চিন্ময়ানন্দের বিরুদ্ধে এই অভিযোগগুলি করেন এবং হোস্টেল থেকে পালিয়ে যান।

ওই ছাত্রী বলেন, পুলিশের সমস্ত রকম জেরা ও জিজ্ঞাসাবাদের উত্তর দিতে তিনি প্রস্তুত। তার কাছে হোস্টেলের যত ভিডিও রয়েছে তাও পুলিশের হাতে তুলে দিতে রাজি। কিন্তু অভিযুক্তকে যেন আগে গ্রেফতার করা হয় এবং তার ও পরিবারের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়। কেননা সাহারানপুরের জেলা প্রশাসকও তার বাবাকে হুমকি দিচ্ছেন।

এদিকে, ছাত্রীটির এই সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন চিন্ময়ানন্দ। তার আইনজীবী ওম সিংহ বলেছেন, গত ২৪ আগস্ট ফেসবুক পোস্টে যখন ওই ছাত্রী অভিযোগ করেছিলেন তখন এই সব কিছু বলেননি। এখন এই সব ভিত্তিহীন অভিযোগ করছেন।

ব্রেকিংনিউজ/এসএসআর

breakingnews.com.bd
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
 Monetized by Galaxysoft
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি