সিরিয়ায় রুশ বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষের জেরে সেনা বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, শনিবার
প্রকাশিত: ০২:৩৬

সিরিয়ায় রুশ বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষের জেরে সেনা বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

সিরিয়ায় রাশিয়ার সেনা বাহিনীর সঙ্গে বেশ কয়েকবার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রের। সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ার পর দেশটিতে বাড়তি সেনা মোতায়েন করেছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন কর্মকর্তাদের বরাতে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম  বিবিসি শনিবার জানায়, সিরিয়ার উত্তরপূর্বাঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্র বাড়তি ছয়টি অস্ত্র সজ্জিত ট্যাংক এবং শতাধিক সেনা পাঠিয়েছে।

মার্কিন এবং রুশ বাহিনী নিয়মিত গৃহযুদ্ধ বিধ্বস্ত সিরিয়ার উত্তরপূর্বাঞ্চলে টহল দেয়। এ বছর দুই বাহিনী বেশ কয়েকবার মুখোমুখি হওয়ায় ওই অঞ্চলে উত্তেজনা বেড়েছে। গত মাসের শেষ দিকে মার্কিন সেনাদের একটি দল রাশিয়ার একটি সাঁজোয়া যানের মুখোমুখি হয়ে গেলে উভয়পক্ষের লড়াইয়ে সাত মার্কিন সেনা আহত হয়। পরে লড়াইয়ের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে পোস্ট করা হয়।

শুক্রবার ইউএস সেন্ট্রাল কমান্ড’র এক মুখপাত্র বলেন, ‘‘যুক্তরাষ্ট্র সিরিয়ায় অন্য কোনো দেশের সঙ্গে সংঘাতে জড়াতে চায় না। তবে প্রয়োজনে অবশ্যই যৌথ বাহিনীকে সুরক্ষা দেবে।”

এ মার্কিন কর্মকর্তা সরাসরি রাশিয়ার নাম উল্লেখ না করলেও নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরেক কর্মকর্তা হুঁশিয়ার করে বলেন, ‘‘উত্তরপূর্ব সিরিয়ায় সেনা মোতায়েন বৃদ্ধির মাধ্যমে আমরা রাশিয়াকে স্পষ্ট করে পারষ্পরিক সমঝোতার মাধ্যমে সংঘাত কমিয়ে আনার যে প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে তা মেনে চলার কথা বলছি। সেখানে রাশিয়া এবং অন্যান্য দলগুলোর সব ধরনের অপেশাদার, অনিরাপদ এবং উসকানিমূলক কাজ থেকে বিরত থাকা উচিত।”

মার্কিন কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে এনবিসি নিউজ এক প্রতিবেদনে জানায়, উত্তরপূর্ব সিরিয়ার একটি ‘নিরাপদ জোন’ যেখান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের যৌথ বাহিনী এবং কুর্দিরা কার্যক্রম পরিচালনা করে সেখানে রুশ বাহিনীর প্রবেশ আটকাতেই নতুন করে সেনা ও সাঁজোয়া যান পাঠানো হয়েছে।

গতমাসের উভয়পক্ষের সংঘর্ষে ৭ সেনা আহত হওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্র এবং রাশিয়া সরকার এ ঘটনার জন্য পরষ্পরকে দায়ী করেছে। যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, রুশ সেনারা তাদের ‘নিরাপদ জোনে’ প্রবেশে করেছে। অথচ চুক্তি অনুযায়ী সেখানে তাদের প্রবেশ করার কথা না। অন্য দিকে রাশিয়া বলেছে, তারা মার্কিন বাহিনীকে আগেই ওই এলাকায় টহল দেওয়ার কথা জানিয়েছিল।

সিরিয়া থেকে ইতোপূর্বে সেনা কমালেও দেশটির উত্তরপূর্বাঞ্চলে এখনো প্রায় পাঁচশ’ মার্কিন সেনা মোতায়েন আছে। তারা সেখানে ইসলামিক স্টেটের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে কুর্দি বাহিনীকে সহায়তা করে। অন্যদিকে রুশ বাহিনী সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের হয়ে লড়াই করে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ২০১৯ সালের ‍অক্টোবরে সিরিয়া থেকে এক হাজার সেনা প্রত্যাহার করে নেওয়ার ঘোষণা দেন। তার কয়েক ‍মাস পর তিনি বলেন, সিরিয়ার তেল কূপগুলোর সুরক্ষায় তিনি কিছু মার্কিন সেনা দেশটিতে মোতায়েন রাখবেন।

ব্রেকিংনিউজ/এম

bnbd-ads
breakingnews.com.bd
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি