মেজর মঞ্জুর হত্যায় এরশাদকে অব্যাহতি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
২৫ জানুয়ারি ২০২১, সোমবার
প্রকাশিত: ০৫:০৯ আপডেট: ০৫:১০

মেজর মঞ্জুর হত্যায় এরশাদকে অব্যাহতি

প্রায় ৪০ বছর আগে চট্টগ্রামে মেজর জেনারেল মঞ্জুর হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলার প্রধান আসামি প্রয়াত সাবেক রাষ্ট্রপতি  এইচএম এরশাদসহ দুইজনকে মামলা থেকে অব্যাহতি দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে আগামী ৬ এপ্রিল মামলাটির পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেন আদালত।

সোমবার (২৫ জানুয়ারি) ঢাকার প্রথম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ দিলারা আলো চন্দ্রনা মামলাটির সম্পূরক চার্জশিট আমলে নিয়ে এ আদেশ দেন। 

মৃত্যুর কারণে অব্যাহতি পাওয়া অপরজন হলেন- মেজর জেনারেল (অব.) আব্দুল লতিফ। তবে মামলার অপর আসামিদের মধ্যে লেফট্যানেন্ট কর্নেল (অব.) শামসুর রহমান শাসনের অংশ উচ্চ আদারত কর্তৃক স্থগিত আদেশের বর্তমান অবস্থার বিষয়ে রাষ্ট্রপক্ষকে আগামী ধার্য তারিখে জানানো জন্য নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। 

এর আগে গত ১২ জানুয়ারি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার কুতুবুর রহমান আদালতে মামলাটির সম্পূরক চার্জশিট দাখিল করেন। সেখানে এরশাদ ও আব্দুল লফিত মারা যাওয়ায় তাদের অব্যাহতি প্রদানের আবেদন করা হয়। এছাড়া অপর আসামি মেজর (অব.) কাজী এমদাদুল হক, লেফট্যানেন্ট কর্নেল (অব.) মোস্তফা কামাল উদ্দিন ভূঁইয়া ও লে. কর্নেল (অব.) শামসুর রহমান শামসদের বিরুদ্ধে সম্পূরক চার্জশিট দেয়া হয়। তারা আগের চার্জশিটেও আসামি ছিলেন। 

১৯৮১ সালের ৩০ মে চট্টগ্রামে এক সেনা অভ্যুত্থানে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান নিহত হন। তখন চট্টগ্রামে অবস্থিত সেনাবাহিনীর ২৩তম পদাতিক ডিবিশনের জেনারেল অফিসার স্টাফ (জিওসি) ছিলেন মেজর জেনারেল আবুল মঞ্জুর। জিয়াউর রহমান নিহত হওয়ার পর আত্মগোপনে যাওয়ার সময় মঞ্জুরকে আটক করে পুলিশ। এরপর ওই বছরের ২ জুন তাকে পুলিশ হেফাজত থেকে চট্টগ্রাম সেনানিবাসে নিয়ে গুলি করে হত্যা করা হয়। 

ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন ও মৃত্যুর সনদপত্র পেতে দেরি হওয়ায় ঘটনার ১৪ বছর পর ১৯৯৫ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি মঞ্জুরের ভাই অ্যাডভোকেট আবুল মনসুর আহমেদ চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ওই বছরের ২৭ জুন এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির সহকারী পুলিশ সুপার আবদুল কাহার আকন্দ ও এশাদসহ ৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। দীর্ঘ ১৯ বছর মামলাটি বিভিন্ন কারণে ঝুলেছিল। বিচার চলাকালে পর্যায়ক্রমে ২২ বিচারক বিচারিক কার্যক্রমে নিয়োজিত ছিলেন। বিভিন্ন কারণে তারা সবাই বদলি হন। 

এরপর ২০১৪ সালের ২২ জানুয়ারি ঢাকার প্রথম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতে এ মামলায় ১০ ফেব্রুয়ারি রায় ঘোষণার দিন ধার্য করেছিলেন। কিন্তু ওই ধার্য তারিখের আগেই বিচারক বদলি হওয়ায় নতুন বিচারক রায় থেকে পুনঃযুক্তিতর্ক শুনানির জন্য ওই বছরের ২৭ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করেন। এরপর ২৭ ফেব্রুয়ারি পুনঃযুক্তিতর্কের ধার্য দিনে রাষ্ট্রপতি মামলাটির তদন্তে কিছু ত্রুটি উল্লেখ করে অধিকতর তদন্তের আবেদন করলে আদালত তা মঞ্জুর করেন। এরপর ওই অধিকতর তদন্ত শেসে গত ১২ জানুয়ারি পুলিশ সম্পূরক চার্জশিট দাখিল করেন।

মামলায় মোট ৪৯ সাক্ষীর মধ্যে ২৮ জনের সাক্ষ্য নেয়া হয়েছে। সাক্ষগ্রহণ শেষে ২০১২ সালের ২ অক্টোবর আত্মপক্ষ সমর্থন করে নিজেকে নির্দোষ দাবি করাসহ আদালতে লিখিত বক্তব্যও দাখিল করেন মামলার প্রধান আসামি এইচএম এরশাদ। 

ব্রেকিংনিউজ/এসআই

bnbd-ads
breakingnews.com.bd
প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি