যে কারণে শিশুরা করোনায় কম আক্রান্ত হয়

লাইফস্টাইল ডেস্ক
২৩ নভেম্বর ২০২০, সোমবার
প্রকাশিত: ০৮:২৮ আপডেট: ০৮:৩০

যে কারণে শিশুরা করোনায় কম আক্রান্ত হয়

গত ১০ মাস ধরে বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই চলছেই। এ লম্বা সময়ে আমরা জেনে এসেছি প্রাপ্ত বয়স্ক থেকে বৃদ্ধদের জন্য এই ভাইরাস ভয়ানক হলেও শিশুদের জন্য তেমন বিপজ্জনক নয়। কেন শিশুদের জন্য এই প্রাণঘাতী ভাইরাসটি বিপজ্জনক নয় তার উল্লেখযোগ্য একটি কারণ আবিষ্কার করেছেন গবেষকরা। 

কেমন শিশুরা করোনায় কম আক্রান্ত হয়, এ নিয়ে একটি গবেষণা করা হয়েছে। ‘জার্নাল অফ ক্লিনিক্যাল ইনভেস্টিগেশন’ সাময়িকীতে প্রকাশিত হয়েছে সেই গবেষণাটি। 

গবেষণায় বলা হয়, সফলভাবে সংক্রমণ ঘটানোর জন্য করোনা ভাইরাস ফুসফুসের ‘এপিথেলিয়াল সেল’ ভেদ করতে হয়। আর যে ‘এনজাইম’ বা ‘কো-রিসেপ্টর’য়ের মাধ্যমে ভাইরাসটি কাজ করে সেটি প্রাপ্তবয়স্ক ও বৃদ্ধদের তুলনায় কম থাকে। ওই ‘এনজাইম’ কে দমন করতে পারলে প্রাপ্ত বয়স্কদের ‘কোভিড-১৯’ থেকে সুরক্ষা দেয়া এবং রোগ সারিয়ে তোলাও সম্ভব হবে। 

এই গবেষণার নেতৃত্বে ছিলেন, ভ্যানডারবেল্ট ইউনিভার্সিটি মেডিকেল সেন্টারের পিডিয়াট্রিকস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জেনিফার সুক্রে। তার সঙ্গে ছিলেন, এই সেন্টারের মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জনাথন ক্রপস্কি।

ভ্যানডারবেল্ট ইউনিভার্সিটি মেডিকেল সেন্টারের প্যাথলজিস্টদের সাহায্য নিয়ে গবেষকরা বিভিন্ন বয়সের মানুষের ফুসফুস কোষের নমুনা সংগ্রহ করেন। 

গবেষণায় তারা দেখিয়েছেন, প্রাপ্তবয়স্কদের ক্ষেত্রে কোভিড-১৯ এর তীব্রতা বেশি আর শিশুদের ক্ষেত্রে তা কম হওয়ার পেছনে টিএমপিআরএসএস টু এনজাইমের ভূমিকা রয়েছে। বয়স যতই বাড়ে, ততই বাড়ে টিএমপিআরএসএসটু সক্রিয়তা। জিন ও প্রোটিন দুই ক্ষেত্রেই ওই এনজাইমের প্রভাব বিদ্যমান। 

করোনা ভাইরাস সম্পর্কে আমাদের এখনও অনেকটা জানা বাকি। তবে এখন পর্যন্ত যা জানা গেছে তা হল ‘ভাইরাস নিঃশ্বাসের সঙ্গে ফুসফুসে প্রবেশ করার পর এর প্রোটিনের তৈরি ‘স্পাইক’ বা অভিক্ষেপগুলো ‘এসিই টু’ নামক ‘রিসেপ্টর’য়ের সঙ্গে আটকে যায়। এই ‘রিসেপ্টর’গুলো ফুসফুসের নির্দিষ্ট কিছু কোষের উপরিভাগে থাকে। পরে কোষের ‘টিএমপিআরএসএস ‍টু’ নামক এনজাইম ওই প্রোটিনের অভিক্ষেপগুলো কেটে ধ্বংস করে। 

এতে ভাইরাস কোষের ‘মেমব্রেন’ বা ঝিল্লির সঙ্গে মিশে যায় এবং একপর্যায়ে কোষের ভেতরে প্রবেশ করে। একবার কোষের ভেতরে প্রবেশ করতে পারলে ভাইরাস কোষের অভ্যন্তরীণ জিনগত নিয়ন্ত্রণ নিজের আয়ত্তে নিয়ে নেয় এবং নিজের ‘আরএনএ’য়ের ‘কপি’ তৈরি করা শুরু করে।

ব্রেকিংনিউজ/এসআই

breakingnews.com.bd
প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি