বিশ্বাসযোগ্যতায় এখনো শীর্ষে ছাপা পত্রিকা: জরিপ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: ০২:৪১

বিশ্বাসযোগ্যতায় এখনো শীর্ষে ছাপা পত্রিকা: জরিপ

অনলাইন গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বহুল ব্যবহারের এই যুগেও বিশ্বাসযোগ্য খবরের মাধ্যম হিসেবে এখনো শীর্ষে রয়েছে ছাপা খবরের কাগজ। সম্প্রতি ভারতীয় মিডিয়া পরামর্শক সংস্থা ওরম্যাক্স পরিচালিত এক জরিপে এ তথ্য উঠে এসেছে। 

জরিপে বিশ্বাসযোগ্যতার দিক থেকে, ৬২ শতাংশ স্কোর পেয়ে প্রথম স্থান পেয়েছে ছাপার কাগজ। আর ৫৭ ও ৫৬ শতাংশ স্কোর নিয়ে যথাক্রমে দ্বিতীয় ও তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে রেডিও ও টেলিভিশন সংবাদ। 

খবরের জন্য সামাজিক যোযোগ মাধ্যমগুলোর বিশ্বাসযোগ্যতার পরিমাপ করা হয় জরিপে। এ সূচকে সবার ওপরে রয়েছে টুইটার। যা টেলিভিশনের খবরের বিশ্বাসযোগ্যতার প্রায় কাছাকাছি। তবে অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর খবরের বিশ্বাসযোগ্যতা খুবই কম বলেই জরিপের সূচক নির্দেশ করছে। 

এরমধ্যে টেলিগ্রাম ৩১ শতাংশ স্কোর নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে, ফেসবুক ৩০ শতাংশ নিয়ে তৃতীয়, ইনস্টাগ্রাম ২৯ শতাংশ স্কোর নিয়ে চতুর্থ এবং ২৮ শতাংশ স্কোর নিয়ে হোয়াটসঅ্যাপ পঞ্চম স্থানে অবস্থান করছে। 

জরিপটি এমন এক সময় প্রকাশ করা হলো যখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সত্য-মিথ্যা খবরের পার্থক্য করা কঠিন হয়ে পড়েছে এবং ভুয়া খবরও ভয়ানকভাবে বাড়ছে।

ওরম্যাক্স জরিপটিতে ‘খবরের বিশ্বাসযোগ্যতার সূচকে’ ভারতের ১৭টি রাজ্য এবং কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলের প্রায় দুই হাজার ৪০০ গ্রাহকের মতামত নিয়েছে। যাদের প্রত্যেকের বয়স ১৫ বছরের ওপরে এবং শহরে বসবাস করেন। 

প্রতিবেদন অনুযায়ী, ৬১ শতাংশ খবর প্রাহক ভুয়া খবর গুরুত্ব দিয়ে দেখেন। ওরম্যাক্স এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী শাইলেশ কাপুর বলেছেন, বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো ভারতেও ভুয়া খবর একটি আলোচ্য বিষয় এবং দিনদিন এ সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করছে। 

ভারতের সবচেয়ে বড় মিডিয়া গ্রুপ বেনেট কোলেম্যান অ্যান্ড কোম্পানি লিমিটেড (বিসিসিএল); যা টাইমস গ্রুপ নামে পরিচিত। বিসিসিএলের এক্সিকিউটিভ কমিটির চেয়ারম্যান শিভ কুমার সুন্দরম বলেছেন, এতে আমার কোন সন্দেহ নাই যে, ছাপার কাগজ আরো অনেক বছরই সবচেয়ে বিশ্বাসযোগ্য গণমাধ্যম হিসেবে টিকে থাকবে। 

ছাপা কাগজের (কোন খবর) আরো বেশি খাঁটি ও যাচাইকৃত। যে কারণে মানুষ ডিজিটাল মাধ্যমে যে খবর পড়ছেন তা নিশ্চিত হতে আবার সংবাদপত্রের জন্য অপেক্ষা করেন। ভারতে সংবাদপত্র কেবল সংবাদ সরবরাহকারী মাধ্যম নয়, বরং আমাদের প্রতিদিনের জীবনের একটি অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ, যোগ করেন তিনি।

শাইলেশ কাপুর আরও যোগ করেন, আমরা এরপর থেকে প্রতি ছয় মাস পরপর এই জরিপ চালিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছি। যাতে সময়ের সাথে সাথে ভুয়া খবর নিয়ে ভোক্তাদের উপলব্ধি জানতে লিপিবদ্ধ করা হবে।

ভারতের এই মিডিয়া বিশ্লেষক বলেন, আদর্শগতভাবে টেলিভিশনের খবর সংবাদপত্রের খবরের মতোই হওয়া উচিৎ। কিন্তু তা হচ্ছে না। নিকট ভবিষ্যতে টেলিভিশনের জন্য এটি ‘বড় একটি সমস্যা’ হয়ে দাঁড়াবে। 

ব্রেকিংনিউজ/এম

bnbd-ads
breakingnews.com.bd
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি