আবরার হত্যা: কে এই অমিত সাহা?

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
১১ অক্টোবর ২০১৯, শুক্রবার
প্রকাশিত: ০১:৪৩ আপডেট: ১১:৫৩

আবরার হত্যা: কে এই অমিত সাহা?

বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের রহস্য একে একে উন্মোচিত হচ্ছে। কারা এই হত্যাকাণ্ড সংঘটিত করেছে? কাদের নির্দেশ কী কারণে এই হত্যাকাণ্ড হয়েছে পুলিশের তদন্তে ধীরে ধীরে সেইসব তথ্য বেরিয়ে আসছে। এরইমধ্যে হত্যার সঙ্গে জড়িত বুয়েটের বায়ো মেডিকেল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র ও বুয়েট ছাত্রলীগের উপ-সমাজসেবা বিষয়ক সম্পাদক ইফতি মোশাররফ সকাল আদালতে ১৬৪ ধারায় দেয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে জানিয়েছেন, হত্যার উদ্দেশ্যেই আবরারকে পেটানো হয়েছিল। ইতোমধ্যে হত্যার সঙ্গে জড়িত অভিযোগে বুয়েট শাখার ১১ জন নেতাকর্মীকে স্থায়ী বহিষ্কার করেছে ছাত্রলীগ। মামলার এজাহারভুক্ত ও সন্দেহভাজন এমন অনেককে আটক করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। বেশ কয়েকজনকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

আবরার বুয়েটের যে হলটিতে থাকতো সেই হলেই তার রুমমেট ছিল অমিত সাহা। এমনকি আবরারকে যে রুমটিতে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছিল সেই রুমটিও ছিল অমিতের নিয়ন্ত্রণে। কিন্তু শুরুতে মামলার এজাহারে অমিতের নাম আসেনি। পরে তদন্ত করে তার নাম যুক্ত করা হয় এবং গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় রাজধানীর সবুজবাগ কালিবাড়ী এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।

আবরার হত্যার পর থেকেই গা ঢাকা দিয়েছিলেন অমিত। কিন্তু বিভিন্ন মহল ও সামাজিক মাধ্যমে হত্যাকাণ্ডে তার সংশ্লিষ্টতার গুঞ্জন উঠলে তদন্তসাপেক্ষে তাকে আটক করে পুলিশ।  

এখন জনমনে প্রশ্ন জেগেছে- কে এই অমিত সাহা? কী তার পরিচয়? নেত্রকোনার ছেলে অমিত সাহা ছোটবেলা থেকেই খুব মেধাবী ছাত্র ছিল। পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণিতে বৃত্তি পায় সে। এলাকার মানুষের কাছে খুব শান্ত ও ভদ্র হিসেবে পরিচিত ছিল অমিত।

অমিতের বাবা রঞ্জিত সাহা পেশায় একজন ধানের আড়তদার। দীর্ঘদিন ধরে তিনি এ ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। নেত্রকোনা শহরের আখড়ার মোড়ে তাদের বাসা। গ্রামের বাড়ি নেত্রকোনা সদড় উপজেলার ঠাকুরাকোণা ইউনিয়নের ঠাকুরাকোণা বাজারের স্বাস্থ্য ক্লিনিকের পাশে।

বুয়েটের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ১৬তম ব্যাচের শিক্ষার্থী অমিত শাখা ছাত্রলীগের আইনবিষয়ক উপসম্পাদক ছিলেন। নেত্রকোনা শহরস্থ স্বনামধন্য আঞ্জুমান আদর্শ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি ও নেত্রকোনা সরকারি কলেজ থেকে কৃতিত্বের সঙ্গে এইচএসসি পাস করেন অমিত।

ভারতের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক চুক্তির বিরোধিতা করে গেল শনিবার (৫ অক্টোবর) বিকেলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন ফাহাদ। এরই জের ধরে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা রবিবার রাতে বুয়েটের শেরেবাংলা হলের নিজের ১০১১ নম্বর কক্ষ থেকে ২০১১ নম্বর কক্ষে ডেকে নিয়ে আবরারকে বেধরক মারপিট করলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

আবরারের রুমমেট অমিত ঘটনার পরপরই গা ঢাকা দেন। নেত্রকোনার বাসাতেও এখন তার বাবা-মা নেই। কারণ অমিতের মা দেবী রানী সাহা ও বাবা রঞ্জিত সাহা গেল ১৯ সেপ্টেম্বর ভারতের তীর্থে যান। এখনও তারা সেখানেই আছেন। অমিতের ছোটবোন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী ঐশ্বরিয়া সাহাও খুব মেধাবী বলে জানা গেছে।

পুলিশের তদন্তে অমিতের নাম আসলেও আবরার হত্যার ঘটনায় ছাত্রলীগ যে তদন্ত কমিটি করেছিল সেই কমিটির তদন্তে অমিত সাহার নাম আসেনি। নৃশংস এই হত্যাকাণ্ডে অমিতের সংশ্লিষ্টতার খবরে গোটা নেত্রকোনাবাসীর মধ্যে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে।

অমিত সাহা উগ্রবাদী হিন্দু সংগঠন ইসকনের সদস্য বলে জানা গেছে। আবরারকে পিটিয়ে হত্যায় তিনিও অংশ নিয়েছিলেন। মারধরের নেতৃত্বও দিয়েছিল সে। এমনকি তাকে এই হত্যাকাণ্ডের মূলহোতা বলে ধারণা করা হচ্ছে। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীরা গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, পেটানোর একপর্যায়ে আবরার যখন অজ্ঞান হয়ে পড়ছিলেন তখন অমিত সাহা ব্যঙ্গ করে বলেছিলেন- ‘সে (আবরার) নাটক করছে’। এই অমিতই আবরারকে ফলো করা ও তার ফেসবুক আইডি চেক করা এবং আবরারকে ছাত্রলীগের কাছে ‘শিবির’ হিসেবে উপস্থাপন করেছিলেন।

ব্রেকিংনিউজ/এমআর

bnbd-ads
breakingnews.com.bd
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : editor. breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : editor. breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি