কর্ণফুলী টানেলের বাম সারির কাজ সম্পন্ন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, চট্টগ্রাম
৭ আগস্ট ২০২০, শুক্রবার
প্রকাশিত: ০৪:৫৮

কর্ণফুলী টানেলের বাম সারির কাজ সম্পন্ন

করোনা মহামারির মধ্যেও চট্টগ্রামের কর্ণফুলী টানেলের বাম সারির কাজ সম্পন্ন হয়েছে। ঢাকার চীনা দূতাবাস এ তথ্য জানিয়েছে।

চীনা দূতাবাস জানায়, করোনার বিরূপ প্রভাব সত্ত্বেও চায়না কমিউনিকেশনস কনস্ট্রাকশন কোম্পানি লিমিটেড (সিসিসিসি) রোববার কর্ণফুলী টানেলের বাম সারির কাজ সম্পন্ন করার মাধ্যমে বিরাট সাফল্য অর্জন করেছে।

শিল্ড সেকশনের দুই-টিউব এবং চার-লেন বিশিষ্ট নকশার এ কর্ণফুলী টানেল চট্টগ্রাম শহরকে কর্ণফুলী নদীর অপর পাড়ের সঙ্গে যুক্ত করে। এ মাল্টি-লেন রোড টানেল প্রকল্পটি দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম নদীর তলদেশে স্থাপিত টানেল এবং চীনা কোম্পানির তৈরি প্রথম বড়-ব্যাস বিশিষ্ট নদীগর্ভস্থ টিবিএম টানেল।

প্রকল্পটি সম্পন্ন হলে চট্টগ্রাম শহরের যান চলাচল ব্যবস্থার ব্যাপক উন্নতির পাশাপাশি বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নেও অবদান রাখবে। এটি এশিয়ার মহাসড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থার পাশাপাশি বাংলাদেশ এবং তার প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে সংযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে ব্যাপক রাখবে।

প্রসঙ্গত, দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনার অংশ হিসেবে কর্ণফুলী টানেল নির্মাণের কাজটি হাতে নেওয়া হয়েছে। মিরসরাই থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত একটি মেরিন ড্রাইভ নির্মাণের প্রক্রিয়া চলছে। এরই মধ্যে সাগরিকা থেকে টানেল পর্যন্ত সাগরপাড়ে ১৭ কিলোমিটার দীর্ঘ রিং রোড নির্মাণ করা হয়েছে। ওই সড়ক যাবে টানেলের ভেতর দিয়ে।

সমীক্ষা প্রতিবেদন অনুযায়ী, কর্ণফুলী টানেল চালুর প্রথম বছর ৬৩ লাখ গাড়ি টানেলের ভেতর দিয়ে চলাচল করবে। চট্টগ্রামের পতেঙ্গা-হালিশহরে বাস্তবায়ধীন আউটার রিং রোড কাজ করবে টানেলের অ্যাপ্রোচ সড়ক হিসেবে। নগরী থেকে টানেল অতিক্রম করে মেরিন ড্রাইভ কক্সবাজার যাবে আনোয়ারা উপজেলা হয়ে। সেই আনোয়ারাতেই বাস্তবায়িত হবে চীনা ইকোনমিক জোন। উত্তর দিকে এই মেরিন ড্রাইভ চলে যাবে দেশের সর্ববৃহৎ অর্থনৈতিক অঞ্চল বঙ্গবন্ধু শিল্প নগর পর্যন্ত।

চট্টগ্রামকে ঘিরে গ্রহণ করা হয়েছে উন্নয়ন মহাপরিকল্পনা। কর্ণফুলী টানেল হয়ে যে সড়ক কক্সবাজার যাবে তা কোনো একসময় মিয়ানমার হয়ে প্রসারিত হবে চীনের কুনমিং সিটি পর্যন্ত। মহাপরিকল্পনার আওতায় চট্টগ্রামে প্রতিষ্ঠা করা হচ্ছে বিদ্যুৎ হাব। মহেশখালীর মাতারবাড়ীতে হচ্ছে এলএনজি টার্মিনাল। এই কর্মযজ্ঞ পৃথকভাবে চলমান থাকলেও মূলত সরকারের মেগা উন্নয়ন পরিকল্পনারই অংশ। কারণ এই চট্টগ্রাম হয়ে খুলে যাবে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দ্বার।

নকশা অনুযায়ী দৈর্ঘ্য হবে তিন কিলোমিটারের চেয়ে সামান্য বেশি। চট্টগ্রাম নগরীর নেভাল একাডেমি পয়েন্ট দিয়ে তলদেশে ঢুকে তা বেরুবে কর্ণফুলী ফার্টিলাইজার কোম্পানি (কাফকো) এবং চিটাগাং ইউরিয়া ফার্টিলাইজার লিমিটেডের (সিইউএফএল) মাঝামাঝি স্থান দিয়ে। নদীর তলদেশে এর গভীরতা থাকবে ১৮ থেকে ৩১ মিটার। মোট দুটি টিউব নির্মিত হবে। একটি দিয়ে গাড়ি শহরপ্রান্ত থেকে প্রবেশ করবে, আরেকটি টিউব দিয়ে ওপার থেকে শহরের দিকে আসবে।

ব্রেকিংনিউজ/এমএইচ

breakingnews.com.bd
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি