প্রথম ধাপে ভাসানচর যাচ্ছে ৬শ' রোহিঙ্গা পরিবার

স্টাফ ক‌রেসপ‌ন্ডেন্ট
২ ডিসেম্বর ২০২০, বুধবার
প্রকাশিত: ০৯:৫৩ আপডেট: ১০:০৪

প্রথম ধাপে ভাসানচর যাচ্ছে ৬শ' রোহিঙ্গা পরিবার

কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফের ৩৪টি ক্যাম্প থেকে স্বেচ্ছায় যেতে ইচ্ছুক রোহিঙ্গাদের মধ্য থেকে প্রথম ধাপে ৬শ’ পরিবারকে ভাসানচরে হস্তান্তর করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই ইচ্ছুক রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে নিয়ে যেতে উখিয়া কলেজ মাঠে অস্থায়ী ট্রানজিট পয়েন্ট স্থাপন করা হয়েছে। মাঠে একাধিক কাপড়ের প্যান্ডেল ও বুথ তৈরি করা হয়েছে। 

জানা গেছে, আগামীকাল বৃহস্পতিবার ভোর থেকে কক্সবাজারের উখিয়া কলেজ মাঠ হতে এসব রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে স্থানান্তর শুরু হতে পারে। এজন্য প্রয়োজনীয় পরিবহন ব্যবস্থা ও খাদ্যসামগ্রী মজুত করা হয়েছে। এর আগে রোহিঙ্গাদের স্থানান্তর কার্যক্রম ঘিরে বঙ্গোপসাগরের এই দ্বীপ ঘুরে আসে ২৩টি এনজিও প্রতিনিধি দল। ভাসানচরে যেতে ইচ্ছুক রোহিঙ্গাদের জন্য মজুত করা হয়েছে ৬৬ টন খাদ্যসামগ্রী।

জানা যায়, রোহিঙ্গারা মনে করছে ক্যাম্পের ঘিঞ্জি ও কোলাহলপূর্ণ পরিবেশের চেয়ে ভাসানচর অনেকটা উন্নত আর নিরাপদ হবে। তাছাড়া গত কয়েক মাস ধরে সক্রিয় রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী গ্রুপগুলোর মধ্যে আধিপত্য বিস্তারের জেরে ক্যাম্পগুলোতে বসবাস করা সাধারণ রোহিঙ্গাদের জন্য অনিরাপদ হয়েছে উঠেছে। এতে ক্যাম্পে শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করা নিয়ে সাধারণ রোহিঙ্গারা শঙ্কিত। এ কারণে অনেক রোহিঙ্গা ক্যাম্পের চেয়ে ভাসানচরকে নিরাপদ মনে করছে। 

উখিয়ার রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন সংগ্রাম কমিটির সাধারণ সম্পাদক নুর মোহাম্মদ সিকদার বলেন, ‘নিজেদের সুযোগ-সুবিধার জন্যই আন্তর্জাতিক গোষ্ঠীগুলো দীর্ঘদিন ধরে রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে হস্তান্তরে নানাভাবে বাদা দিয়ে আসছে। না হলে অনেক আগেই রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হতো।’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কুতুপালং শিবিরের একজন রোহিঙ্গা জানান, রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের অত্যাচার-নির্যাতন তাদের জীবন বিষিয়ে তুলেছে। যেকোনভাবে তারা স্বদেশে ফিরতে চান। তারা যতদিন স্বদেশে ফিরে যাওয়ার পরিবেশে তৈরি না হবে, ততদিন তারা ভাসানচকে নিরাপদ স্থান মনে করছেন। 

ইতিমধ্যে নোয়াখালীর ভাসানচরে আরআরআরসি এর একটি সাব-অফিস স্থাপন করা হয়েছে। সেখানে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের স্থানান্তরের প্রক্রিয়া চলছে। এছাড়া কয়েকটি এনজিও’র অফিস স্থাপনের কাজও চলমান রয়েছে। সম্প্রতি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কর্মরত ২৩ টি এনজিও’র একটি প্রতিনিধি দল ভাসানচর পরিদর্শন করে এসেছে।

ভাসানচর ঘুরে আসা এসব এনজিও’র প্রতিনিধি দলের সদস্যরা মনে করছেন, ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের জন্য যে অবকাঠামো তৈরি করা হয়েছে, তা মানুষের বসবাসের জন্য উপযোগী, বেশ উন্নত, টেকসই ও মনোমুগ্ধকর। সেখানে রোহিঙ্গাদের নিরাপদে বসবাস করার মত নিরাপদ ও উপযুক্ত পরিবেশ রয়েছে।

সম্প্রতি ভাসানচর ঘুরে আসা এনজিও প্রতিনিধি দলের সদস্য ও গ্লোবাল উন্নয়ন সেবা সংস্থার পরিচালক মো. নুরুল ইসলাম ব্যক্তিগত মতামত দিয়ে বলেন, ভাসানচরে নৌ-বাহিনীর তত্ত্বাবধানে রোহিঙ্গাদের জন্য যে অবকাঠামো তৈরি হয়েছে তা বেশ উন্নত, স্বাস্থ্য সম্মত ও টেকসই। এসব স্থাপনা যে প্রাকৃতিক দুযোর্গ মোকাবিলা করতে সক্ষম। সেখানে মনোমুগ্ধকর পরিবেশ রয়েছে যা রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ঘিঞ্জি পরিবেশের চেয়ে উন্নত। সেখানে মানুষের বসবাসের নিরাপদ ও উপযোগী পরিবেশ রয়েছে।

একই মন্তব্য করে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের এফডিএনএম প্রকল্পের পরিচালক নাসিমা ইয়াসমিন বলেন, ভাসানচর আয়তনের দিক দিয়ে টেকনাফের সেন্টমার্টিনের চেয়ে অনেক বড়। দ্বীপটির চারপাশে নিরাপত্তার জন্য যে বাঁধ তৈরি করা হয়েছে, তা যেকোন প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকবিলা করতে সক্ষম। এছাড়া সেখানে নির্মিত অবকাঠামোগুলো উন্নত প্রযুক্তির ও টেকসই হওয়ায় মানুষের বসবাসের জন্য নিরাপদ।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে অল্প জায়গায় অনেক মানুষ যেভাবে গাদাগাদি করে থাকে ভাসানচরে তার চেয়ে উন্নত পরিবেশ থাকার তথ্য জানিয়ে ভাসানচর ঘুরে আসা এ এনজিও নারী কর্মকর্তা বলেন, ভাসানচরে অনায়াসে এক লক্ষাধিক মানুষ বসবাস করতে পারবে। এছাড়া সেখানে স্থানান্তর হওয়া রোহিঙ্গারাও স্বাস্থ্য সম্মত ও নিরাপদ পরিবেশে অবস্থান করতে পারবে।

ব্রেকিংনিউজ/এসআই 

bnbd-ads
breakingnews.com.bd
প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি