ইভিএমে কারচুপি হলে সরকার পতনের আন্দোলন: মির্জা আব্বাস

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
২০ জানুয়ারি ২০২০, সোমবার
প্রকাশিত: ১২:৫১ আপডেট: ১২:৫৪

ইভিএমে কারচুপি হলে সরকার পতনের আন্দোলন: মির্জা আব্বাস
ছবি: সালেকুজ্জামান রাজীব

আসন্ন ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনে ইভিএম ব্যবস্থার কড়া বিরোধিতা করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেছেন, ‘ইভিএমে যদি সুষ্ঠু ও সঠিক ফলাফল আসে তাহলে আমরা নির্বাচন মেনে নেবো। কিন্তু যদি কোনও ধরনের কারচুপির আশ্রয় নেয়া হয় তাহলে এই মেয়র নির্বাচন থেকেই সরকার পতনের আন্দোলন শুরু হবে।’ 

সোমবার (২০ জানুয়ারি) ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেনের একাদশতম দিনের প্রচারণার শুরুতে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সামনে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে তিনি এ হুঁশিয়ারি দেন। 

ঢাকা সিটির সাবেক মেয়র মির্জা আব্বাস বলেন, ‘আমরা যখন মেয়র ছিলাম তখন ঢাকা শহর এতো নোংরা ছিল না, এতো যানজট ছিল না শহরে। আজকে এই ১৩ বছরে আওয়ামী লীগ সরকারের শাসন আমলে ঢাকা শহরকে ধ্বংস করে দেয়া হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘গত ১৩ বছরে ঢাকা শহর যে ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে সেই ধ্বংসস্তূপ থেকে আমাদের প্রাণের শহরকে উদ্ধার করার জন্য বিএনপি থেকে আমরা সাদেক হোসেন খোকার একজন যোগ্য উত্তরসূরি তার পুত্র ইশরাক হোসেনকে মনোনয়ন দিয়েছি। ইশরাক যে কোনও প্রার্থীর থেকে যোগ্য। ইনশাল্লাহ ইশরাক হোসেন ঢাকা শহরকে বাসযোগ্য সুন্দর নগরী হিসেবে উপহার দেবেন।’

আব্বাস আরও বলেন, ‘ব্যারিস্টার হাসনাত বিএনপির মেয়র ছিলেন, আমি মির্জা আব্বাস বিএনপির মেয়র ছিলাম, সাদেক হোসেন খোকা বিএনপি মেয়র ছিলেন। সেসময় ঢাকা পরিচ্ছন্ন ও সবুজ নগরী ছিল, তখন ঢাকা শহর ধ্বংস হয় নাই।’

ভোটারদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘ইশরাককে আপনারা সহযোগিতা করবেন, ইশরাককে আপনারা একটি ভোট দেবেন। আমার অভিজ্ঞতা ও সাদেক হোসেন খোকার অভিজ্ঞতা মিলিয়ে ইশরাক হোসেনকে সৎ পথে পরিচালনা করবো।’

তিনি বলেন, ‘পত্রিকায় দেখলাম ‘বিএনপির টার্গেট সিটি নির্বাচনকে বিতর্কিত করা’- আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক কাদের (ওবায়দুল কাদের) সাহেবের এমন বক্তব্য শিরোনাম হয়েছে। আমি বলতে চাই, বিএনপির টার্গেট নির্বাচনে জয়ী হওয়া, নির্বাচনকে বিতর্কিত করা নয়। কারণ আপনারা (কাদের) জবরদস্তি করে বিজয়ী হওয়ার চেষ্টা করছেন। বিএনপি কখনই বিতর্কের মধ্যে ছিল না, নাই, থাকবেও না। আমরা চাই সুষ্ঠু ও সুন্দর নির্বাচন।’

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, যুগ্ম-মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নীরব, বিএনপি নেতা মীর সরাফত আলী সপু, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবদলের সভাপতি রফিকুল আলম মজনু ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাওলা শাহিন প্রমুখ।

ব্রেকিংনিউজ/এএইচ/এমআর

breakingnews.com.bd
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি