হযরত যায়েদ রাসুলকে ছেড়ে পিতার কাছে যেতে চাইলেন না কেন?

ধর্ম ডেস্ক
৬ এপ্রিল ২০২০, সোমবার
প্রকাশিত: ১২:৪৫ আপডেট: ০১:৪৭

হযরত যায়েদ রাসুলকে ছেড়ে পিতার কাছে যেতে চাইলেন না কেন?

হযরত যায়েদ ইবনে হারেসা রদিয়াল্লাহু আনহু। জাহিলিয়াতের যুগে তার মায়ের সঙ্গে নানা বাড়িতে যাচ্ছিলেন। বনু কায়সের লোকেরা তাদের কাফেলাকে লুন্ঠন করেন। তার মধ্যে হযরত যায়েদ (রা.) ও ছিলেন। তাকে মক্কার বাজারে বিক্রি করে দেন। হাকীম ইবনে হিযাম তাকে তার আপন ফুফু হযরত খাদিজা রাদিয়াল্লাহু আনহা এর জন্য ক্রয় করিয়া নেন।

যখন প্রিয় নবীর সহিত হযরত খাদিজার বিবাহ হয় তখন তিনি যায়েদকে রাসুলুল্লাহর খেদমতে হাদিয়া স্বরূপ পেশ করিলেন। হযরত যায়েদ (রা.) এর পিতা পুত্রের বিচ্ছেদে অত্যন্ত ব্যথিত ছিলেন। আর এরূপ হওয়াটাই স্বাভাবিক। কেননা সন্তানের মুহাব্বাত জন্মগত জিনিস। তিনি যায়েদের (রদিয়াল্লহু আনহু) বিচ্ছেদে কাঁদিতেন আর শোকের কবিতা পড়িয়া ঘুরিয়া বেড়াতেন। মোটকথা তিনি এই সমস্ত কবিতা পড়িতেন এবং ক্রন্দনরত অবস্থায় তাহাকে খুঁজিয়া বেড়াতেন।

ঘটনাক্রমে তাহার গোত্রের কিছু লোক হজে গেলেন। এবং তারা যায়েদ (রা.) কে দেখিয়া চিনিয়া ফেলেন। তাঁহাকে পিতার অবস্থা শুনালেন, কবিতা শুনালেন এবং তাহার স্মরণ ও বিচ্ছেদের করুন কাহিনী শুনালেন। হযরত যায়েদ রদিয়াল্লহু আনহু তাদের মাধ্যমে পিতার নিকট তিনটি লাইন বলিয়া পাঠাইলেন যাহার অর্থ ছিল–

আমি এখানে মক্কায় ভালো আছি। আপনারা আমার জন্য কোন দুঃখ ও চিন্তা করিবেন না। আমি অত্যান্ত দয়ালু লোকদের গোলামীতে আছি।

তাহারা যেয়ে যায়েদের হাল অবস্থা তাহার পিতাকে জানালে এবং যায়েদ (রা.) আনহু যে কবিতা বলিয়া দিয়াছিলেন তাহা শুনালেন এবং ঠিকানা বলিয়া দিলেন। যায়েদ রদিয়াল্লহু আনহু এর পিতা এবং চাচা কিছু মুক্তিপণ লইয়া তাকে মুক্ত করার উদ্দেশ্য মক্কা মুকাররমায় পৌঁছালেন।


তারা এসে প্রিয় নবীর খেদমতে পৌঁছালেন এবং আরজ করিলেন, হে হাশেমের বংশধর! এবং আপন গোত্রের সরদার, হারাম শরীপের অধিবাসী এবং আল্লাহর ঘরের প্রতিবেশী। আপনার স্বয়ং কয়েদীদের মুক্ত করেন, ক্ষুধার্তদের খাদ্য দান করেন। আমরা আমাদের ছেলের তালাশে আপনার নিকট এসেছি। আমাদের প্রতি অনুগ্রহ করুন। দয়া করুন এবং মুক্তিপণ নিয়ে তাহাকে ছাড়িয়া দিন। বরং মুক্তিপণ যাহা আসে উহার চাইতেও বেশি গ্রহণ করুন।

রসুলুল্লহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলিলেন, কি ব্যাপার? তাহারা বলিলেন, আমরা যায়েদের খোঁজে আসিয়াছি। রসুলুল্লাহ বলিলেন, শুধু এই ব্যাপার? তাহারা বলিলেন, শুধু ইহাই উদ্দেশ্য। প্রিয় নবী বলিলেন তাহাকে ডেকে জিজ্ঞাসা করুন। যদি সে আপনাদের সহিত যেতে চায় তবে মুক্তিপণ ছাড়াই তাকে দান করলাম। আর যদি সে যেতে না চায়, তবে আমি এমন ব্যক্তির উপর চাপ সৃষ্টি করতে পারিনা যে নিজেই যেতে চাচ্ছে না। তাহারা বলিল, আপনি আমাদের দাবির চেয়ে বেশি অনুগ্রহ করেছেন। আমরা ইহা খুশিতে মানিয়া লইলাম।

হযরত যায়েদকে ডাকা হলো। রসুলুল্লাহ জিজ্ঞাসা করিলেন। তুমি কি তাদের চিন? তিনি বলিলেন, জ্বি হ্যাঁ, ইনি আমার পিতা, ইনি আমার চাচা। রসুলুল্লাহ সল্লাল্লহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলিলেন, তুমি আমার অবস্থা সম্পর্কে জানো। এখন তোমার ইচ্ছা, যদি আমার কাছে থাকতে চাও তবে আমার কাছে থাক, আর তাদের সহিত যেতে চাহিলে অনুমতি আছে।

হযরত যায়েদ রদিয়াল্লাহু আনহু বলিলেন, আমি কি আপনার মুকাবিলায় অন্য কাহাকেও পছন্দ করিতে পারি? আপনি আমার পিতৃতুল্য ও চাচাতুল্য। পিতা ও চাচা বলিলেন, হে যায়েদ! তুমি আযাদীর তুলনায় গোলামীকে অগ্রাধিকার দিচ্ছ? আর বাপ, চাচা ও পরিবারের লোকদের চেয়ে গোলাম থাকাকেই পছন্দ করছ? হযরত যায়েদ প্রিয় নবীর দিকে ইশারা করিয়া) বলিলেন, আমি তাঁহার মধ্যে এমন বিষয় দেখতে পাচ্ছি যাহার মোকাবেলায় অন্য বস্তুকেই পছন্দ করিতে পারছি না। রসুলুল্লহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তাহার এই উত্তর শুনিয়া তাকে কোলে উঠাইয়া লইলেন এবং বলিলেন, আমি তাহাকে আপন পুত্র বানাইয়া লইলাম। যায়েদ রদিয়াল্লহু আনহু এর পিতা ও চাচা এই দৃশ্য দেখিয়া  আনন্দিত হইলেন এবং খুশিমনে তাঁহাকে রাখিয়া চলে গেলেন।

যায়েদ রদিয়াল্লাহু আনহু ঐ সময়ে বাচ্চা ছিলেন। বাচ্চা অবস্থায় পিতামাতা পরিবার-পরিজন, আত্মীয়-স্বজন সকলকে ত্যাগ করিয়া গোলাম থাকাকে পছন্দ করা কতখানি মুহাব্বাতের পরিচয় দেয় তাহা পরিষ্কার বুঝা যায়।

ব্রেকিংনিউজ/এসপি

 

breakingnews.com.bd
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি